Headlines
Loading...
পুরসভার নতুন চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যানের নাম চূড়ান্ত! ঘোষণার অপেক্ষা

পুরসভার নতুন চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যানের নাম চূড়ান্ত! ঘোষণার অপেক্ষা


ফোকাস বেঙ্গল ডেস্ক,পূর্ব বর্ধমান: রাজ্যের ১০৮টি পুরসভার নতুন পুর বোর্ড গঠনের নোটিফিকেশন এখনও জারি হয়নি। আগামীকাল এই নোটিফিকেশন জারি হতে পারে বলেই আভাস পাওয়া গেছে রাজ্য পুর ও নগরোন্নয়ন দপ্তর সূত্রে। আর এরই মাঝে শুক্রবার থেকে সমস্ত পুরসভার চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যান দের লিস্ট একপ্রকার চূড়ান্ত করে ফেলার কাজ শুরু হয়ে গেছে তৃণমূলের রাজ্য নেতৃত্বের তরফে। এবারও মুখবন্ধ খামে দলের জেলা সভাপতিদের কাছে নতুন পুর বোর্ডের লিস্ট পাঠানোর ব্যবস্থা করা হয়েছে। প্রসঙ্গত, রাজ্যের ১০৭ টি পুরসভার মধ্যে ১০২টিতেই জিতেছে তৃণমূল। ১ টিতে জয়ী বামেরা, আর ১টিতে জিতেছে অন্যন্যরা। ৩ পুরসভা ত্রিশঙ্কু।


সূত্রের খবর প্রত্যেক জেলার প্রতিটি পুরসভার এই লিস্টে সীলমোহরও পড়ে গিয়েছে তৃণমূল কংগ্রেসের শীর্ষ নেতৃত্বের। আগামী সোমবার প্রতিটি জেলার সভাপতির কাছে পুরো বোর্ড গঠনের লিস্ট পাঠিয়ে দেওয়া হবে বলে সূত্র মারফৎ জানা গেছে। আর তারপরেই জেলাস্তরের প্রত্যেক পুরসভা অনুযায়ী ঘোষণা করা হবে পুরো বোর্ডের চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান সহ পুরবোর্ড এর তালিকা। স্বাভাবিকভাবেই নতুন পুর বোর্ডের চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যান কারা হতে চলেছেন তা নিয়ে রাজ্যের অন্যান্য পুরসভার পাশাপাশি পূর্ব বর্ধমানের ৬টি পুরসভা এলাকাতেও উৎকণ্ঠার শেষ নেই।


প্রসঙ্গত নির্বাচনে বিপুল ভোটে জয়লাভের পর এবার পূর্ব বর্ধমান জেলার ৬ টি পুরসভায় পুরবোর্ড গঠনের পালা। বর্ধমান পুরসভার ৩৫ টি ওয়ার্ডের মধ্যেই অধিকাংশ পুরসভাতে নতুন মুখের প্রার্থীরা জয়লাভ করেছেন। তাঁদের প্রাপ্ত ভোটের পরিমাণও নেহাত কম নয়। নতুন প্রার্থীদের মধ্যে কেউ কেউ অন্যান্য তৃণমূল প্রার্থীদের থেকে প্রাপ্ত ভোটের নিরিখে চেয়ারম্যান হওয়ার দৌড়ে এগিয়ে রয়েছেন। অন্যদিকে, দুবারের কাউন্সিললার ছিলেন এরকম অনেকে এবারে পুর নির্বাচনে লড়ার টিকিট পেয়েছিলেন। তাই চেয়ারম্যান পদ প্রার্থী হিসেবে তাঁরাও পিছিয়ে নেই।


বর্ধমান পুরসভার চেয়ারম্যান নির্বাচনের ক্ষেত্রে পুরোনো প্রার্থীদের গুরুত্ব দেওয়া হবে নাকি তরুণ প্রজন্মের প্রার্থীদের মধ্যে থেকে চেয়ারম্যান বাছাই করা হবে তা নিয়ে জল্পনা চলছেই। একদিকে যেমন প্রাক্তন কাউন্সিলাররা রয়েছেন, অন্যদিকে তরুণ শিক্ষিত মুখেরাও রয়েছেন। বিজয়ী প্রার্থীদের মধ্যে এবার স্কুলের প্রধান শিক্ষিকাও রয়েছেন। আবার বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসারও আছেন। আছেন প্রাক্তন পুলিশ অফিসার।
তাই বর্ধমান পুরসভায় এবারে চেয়ারম্যান কে হতে চলেছেন তা নিয়ে আলোচনার শেষ নেই। চেয়ারম্যান হিসেবে প্রাক্তন কাউন্সিলারদের মধ্যে থেকেই বাছাই করা হবে, নাকি নতুন মুখ বেছে নেওয়া হবে। নাকি বর্ধমান পুরসভা এবার প্রথম মহিলা চেয়ারম্যান পেতে চলেছে তা নিয়েও জোর জল্পনা শুরু হয়েছে।


জেলার প্রাক্তন যুব সভাপতি রাসবিহারী হালদার। দল তাকে পুর নির্বাচনে বর্ধমানের ১৪ নম্বর ওয়ার্ড থেকে নির্বাচনে লড়ার টিকিট দিয়েছিল। শহরের এই ওয়ার্ডেই সিপিআইএম ও বিজেপির হেভিওয়েট দুজন প্রার্থী নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছিলেন। তারপরেও রাসবিহারী প্রাপ্ত ভোট ৫১৯৮। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বীর থেকে ৪৯৩৮ ভোট বেশি জয়লাভ করেছেন তিনি। ৯ নম্বর ওয়ার্ডের প্রার্থী শিখা দত্ত সেনগুপ্ত। গত পুর নির্বাচনে এই ওয়ার্ডেরই কাউন্সিলার ছিলেন তিনি। তাই চেয়ারম্যান পদপ্রার্থীর দৌড়ে একধাপ এগিয়ে রয়েছেন তিনিও। অন্যদিকে, ৩৪ নম্বর ওয়ার্ডের দুবারের প্রাক্তন কাউন্সিলর উমা সাই। এবারেও নির্বাচনে লড়ার সুযোগ পেয়েছিলেন তিনি। রাজ্য রাজনীতিতে বর্ধমানের সাই বাড়ির ঘটনা কারুর অজানা নয়। সেই পরিবারের সদস্য তিনি। চেয়ারম্যানের দৌড়ে তার নামও আলোচনায় উঠে আসছে।


এরই পাশাপাশি ১১নম্বর ওয়ার্ড থেকে জয়ী বর্ষীয়ান তৃণমূল নেতা তথা শিক্ষক পরেশ চন্দ্র সরকার এবার চেয়ারম্যানের দৌড়ে রয়েছেন বলে আলোচনায় উঠে আসছে। এদিকে এবার বর্ধমান দক্ষিণের বিধায়ক খোকন দাসের স্ত্রী মৌসুমী দাস প্রথমবার প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে ২৩নং ওয়ার্ড থেকে জয়ী হয়েছেন। পাশের ওয়ার্ড ২৪নং থেকে বিধায়কের ঘনিষ্ট মানিক দাস বর্ধমান পুর এলাকার ৩৫টি ওয়ার্ডের মধ্যে সর্বাধিক ভোটে জয়লাভ করেছেন। ফলে এই দুই জয়ী প্রার্থীরাও চেয়ারম্যান হওয়ার দৌড়ে রয়েছেন। যদিও চেয়ারম্যান হিসেবে কিংবা ভাইস হিসেবে শেষমেশ দল কাকে বেছে নেবে তার দিকে তাকিয়ে রয়েছেন বর্ধমান পুরবাসী। অপেক্ষা কয়েকটা দিনের।
(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});