Headlines
Loading...
বর্ধমানের সরকারী মঞ্চ থেকেই রাজনৈতিক বার্তা মন্ত্রী মলয় ঘটকের

বর্ধমানের সরকারী মঞ্চ থেকেই রাজনৈতিক বার্তা মন্ত্রী মলয় ঘটকের


ফোকাস বেঙ্গল ডেস্ক,পূর্ব বর্ধমান: আগামী ২০২৪ সালের লোকসভা নির্বাচনে দেশের প্রধানমন্ত্রী হিসাবে মমতা বন্দোপাধ্যায়কেই যাতে বসানো যায় তার জন্য সকলকে চেষ্টা করতে হবে। শপথ নিতে হবে সকলকে। শনিবার জাতীয় সংখ্যালঘু অধিকার দিবসে সরকারী মঞ্চকে ব্যবহার করে এভাবেই রাজনৈতিক বক্তব্য রেখে গেলেন রাজ্যের শ্রম ও পুরমন্ত্রী মলয় ঘটক। এদিন বর্ধমান সংস্কৃতি লোকমঞ্চে জাতীয় সংখ্যালঘু অধিকার দিবস পালনের আয়োজন করে রাজ্য সংখ্যালঘু কমিশন।


 এদিন এই অনুষ্ঠানে হাজির ছিলেন রাজ্যের সংখ্যালঘু দপ্তরের মন্ত্রী মহম্মদ গোলাম রব্বানি, প্রাণী সম্পদ বিকাশ দপ্তরের মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ, সেচ ও জলপথ দপ্তরের মন্ত্রী সাবিনা ইয়াসমিন সহ রাজ্যের সংখ্যালঘু কমিশনের চেয়ারম্যান ডা. মমতাজ সংঘমিতা, জেলা পরিষদের সভাধিপতি শম্পা ধাড়া, জেলাশাসক প্রিয়াংকা সিংলা, জেলা পুলিশ সুপার কামনাশীষ সেন সহ অন্যান্যরা। 


এদিন বক্তব্য রাখতে গিয়ে মলয় ঘটক বলেন, এই বাংলার বুকে কোনো বিভেদ নেই। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায় যে সমস্ত সরকারী প্রকল্প ঘোষণা করেছেন সেখানে কোনো বিভাজন নেই। লক্ষ্মীর ভাণ্ডার, স্টুডেণ্ট ক্রেডিট কার্ড সহ সরকারী সমস্ত প্রকল্পেই রাজ্যের সমস্ত নাগরিক তার সুবিধা পাচ্ছেন। তিনি বলেন, বাংলার রুপকার ডা. বিধানচন্দ্র রায় যখন এই রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী ছিলেন তখন তাঁর কাঁধে কোনো দেনা ছিলনা। 


কিন্তু বাংলার নবরূপকার হিসাবে ইতিমধ্যেই মমতা বন্দোপাধ্যায় দেখিয়ে দিয়েছেন বিপুল পরিমাণ দেনার বোঝা নিয়েও বাংলার উন্নয়ন কিভাবে করা যায়। মলয়বাবু বলেন, আজ বাংলার উন্নয়ন গোটা দেশের কাছেই নজীর। তাই ভারতবর্ষের উন্নয়নের জন্য বাংলার এই মুখ্যমন্ত্রীকেই প্রধানমন্ত্রীর আসনে বসাতে হবে। আর সেই লক্ষ্যেই সকলকে শপথ নিতে হবে।



0 Comments: