Headlines
Loading...
ফুল বিক্রেতার ছেলে মেডিকেল নিটে সফল, স্কুলের পক্ষ থেকে স্বর্ণপদক দিয়ে সম্বর্ধনা

ফুল বিক্রেতার ছেলে মেডিকেল নিটে সফল, স্কুলের পক্ষ থেকে স্বর্ণপদক দিয়ে সম্বর্ধনা


ফোকাস বেঙ্গল ডেস্ক,পূর্ব বর্ধমান: বাবা ফুল বিক্রেতা, আর সেই পরিবারের ছেলেই সর্বভারতীয় নিট পরীক্ষায় ৭০০ এর মধ্যে ৬৬১ পেয়ে তাক লাগিয়ে দিয়েছে পূর্ব বর্ধমানের রায়না থানার সেহারাবাজার এলাকার বাসিন্দা আকাশ পোদ্দার। সেহারাবাজার সি কে ইনস্টিটিউসনে পঞ্চম শ্রেণী থেকে পরে এই বছরেই উচ্চমাধ্যমিক পাশ করেছে আকাশ। এরপরই নিজেকে একজন সুচিকিৎসক হিসেবে জীবনে প্রতিষ্ঠিত করার লক্ষ্যে নিটের মেডিকেল পরীক্ষায় বসে সফলভাবে উত্তীর্ণ হয়। 


 বাবা সরমন পোদ্দার একজন ফুল বিক্রেতা। ছেলে আকাশ বরাবরই অতন্ত্য মেধাবী এবং পরিশ্রমী ছাত্র হিসেবেই নিজেকে মেলে ধরেছে। আর এলাকার এই মেধাবী, কৃতি ছাত্রের কীর্তিতে গৌরবান্বিত হয়েছেন তাঁর স্কুল থেকে এলাকার সমগ্র মানুষ। তারই প্রতিদানে সোমবার আকাশ পোদ্দারের স্কুলের পক্ষ থেকে এদিন তাকে স্বর্ণ পদক দিয়ে সম্বর্ধনা জানানো হলো। এই কৃতি ছাত্রকে তার মা, বাবা ও স্কুলের ছাত্রছাত্রীদের সামনে পূর্ব বর্ধমান জেলা পরিষদের সভাধিপতি তথা রায়নার বিধায়িকা শম্পা ধাড়া গলায় স্বর্ণ পদক পরিয়ে দিয়ে সম্বর্ধিত করেন। 


এদিন এই সম্বর্ধনা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন স্কুলের স্থায়ী সভাপতি স্বদেশ রায়, প্রধান শিক্ষক মজফফর আহমেদ, রাধারানী বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা সর্বানী মুখোপাধ্যায়,সেহারা অঞ্চল ও সগরাই অঞ্চলের প্রধান দয়াবতী বাগ সহ শুভেন্দু পাল, অনন্ত মন্ডল, সনৎ দে, সমাজসেবী সফিকুল ইসলাম ও অনেক বিশিষ্ট অথিতিরা। 


স্কুলের প্রধান শিক্ষক মজফফর আহমেদ বলেন, আমরা এই গরিব ও মেধাবী ছাত্র আকাশ পোদ্দারকে সর্বতভাবে সাহায্য করেছি, স্কুলের প্রাক্তন হয়ে গেলেও আগামীতেও সাহায্য করবো। সভাধিপতি শম্পা ধাড়াও এই মেধাবী ছাত্র কে সাহায্য করবেন বলে অঙ্গীকার করেন। আকাশ তার সাফল্যের পিছনে বাবা মা, স্কুলের শিক্ষক মণ্ডলী ও গৃহ শিক্ষকদের অবদানের কথা তুলে ধরেন। আকাশ জানিয়েছে, আগামীদিনে ডাক্তার হয়ে এলাকার গরিব মানুষের চিকিৎসায় নিজেকে নিয়োজিত করবে।


0 Comments: