728x90 AdSpace

Latest News

Tuesday, 6 April 2021

২৪ঘন্টার মধ্যে ফের বোমা বিস্ফোরণ গলসিতে, তীব্র উত্তেজনা


ফোকাস বেঙ্গল ডেস্ক,গলসি: রাজ্যে তৃতীয় দফার ভোটের দিনেই ফের শিরোনামে পূর্ব বর্ধমানের গলসি। যদিও এই বিধানসভার ভোট ষষ্ঠ দফায় অনুষ্ঠিত হবে। তবে তার আগে পরপর দুদিন গলসি ১ব্লকের আটপাড়া এবং রাইপুর এলাকায় বোমা বিস্ফোরণের ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। রবিবার রাতে আটপাড়ায় শেখ ফটিকের বাড়িতে বোমা বিস্ফোরণের পর মঙ্গলবার সকাল ১১টা নাগাদ পাশের গ্রাম রাইপুরে সেখ রফিকুলের নির্মিয়মান বাড়িতে বোমা বিস্ফোরণের ঘটনায় তীব্র উত্তেজনা ছড়াল। বিস্ফোরণে নির্মিয়মান বাড়িটি সম্পূর্ণ ভেঙে পড়ে। 

পুলিশের প্রাথমিক অনুমান ওই বাড়িটিতে মজুত বোমা ফেটেই এই বিস্ফোরণ ঘটেছে। ঘটনার পর গলসি থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে তদন্ত শুরু করেছে। প্লাস্টিকের জারের মধ্যে বোমা গুলি মজুত ছিলো বলে প্রাথমিক ধারনা। পুলিশ জানিয়েছে, পরপর দুটি ঘটনারই তদন্ত শুরু হয়েছে। ইতিমধ্যে আটপাড়ায় বিস্ফোরণের ঘটনায় বাড়ি মালিককে গ্রেফতার করা হয়েছে। 

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, রাইপুর শিশু শিক্ষা কেন্দ্রের পাশেই এই বিস্ফোরনের ঘটনাটি ঘটেছে। পরশু রাত্রে এই রাইপুর গ্রামের পাশেই আটপাড়া গ্রামে মজুত বোমা বিস্ফোরণ হয়েছিলো। স্বাভাবিকভাবেই ভোটের মুখে পরপর বোমা বিস্ফোরণের ঘটনায় গলসির রাজনৈতিক উত্তাপ যে প্রতিদিন বেড়েই চলেছে সে কথা স্বীকার করছেন এই বিধানসভার শাসকদলের নেতা থেকে বিরোধীদলের নেতারা।  

এদিকে রফিকুল শেখের মা শাকিলা বিবি জানিয়েছেন, তাঁর ছেলে কোনো রাজনৈতিক দলের সঙ্গে যুক্ত নয়। রাজমিস্ত্রির কাজ করে খায়। যখন যেমন কাজ পায় তাই করে। লোকডাউনের সময় কেরল থেকে ফিরে আসে। টাকার অভাবে বাড়ি তৈরির কাজ কিছুদিন বন্ধ হয়ে আছে। তিনি জানান, এদিন সকালে বিকট আওয়াজ শুনে বাড়ির কাছে যেতে গেলে পাড়ার ছেলেরা যেতে বারণ করে। অনেক কষ্টে টাকা জোগাড় করে বাড়ি তৈরি করেছিল ছেলে। কে বা কারা এই দুষ্কর্ম করলো কিছুই বুঝতে পারছি না। তবে যারা এই কাজের সঙ্গে যুক্ত তাদের খুঁজে বের করে পুলিশ শাস্তি দিক। অন্যদিকে রাইপুর শিশু শিক্ষা কেন্দ্রের পাশেই বাড়ি রানু খাতুনের। তিনি জানিয়েছেন, ছোট ছোট ছেলেমেয়েদের বাড়ির বাইরে বের করতে ভয় লাগছে। প্রতিদিন বোমা ফাটছে। যারাই এই অসামাজিক কাজের সঙ্গে জড়িত তাদের অবিলম্বে গ্রেফতার করা হোক।
২৪ঘন্টার মধ্যে ফের বোমা বিস্ফোরণ গলসিতে, তীব্র উত্তেজনা
  • Blogger Comments
  • Facebook Comments

0 comments:

Post a comment

Top