728x90 AdSpace

Latest News

Tuesday, 23 March 2021

পূর্ব বর্ধমানে মনোনয়ন শুরু হয়ে গেলেও প্রার্থী নিয়ে অসন্তোষ চলছেই



ফোকাস বেঙ্গল ডেস্ক,জামালপুর: মঙ্গলবার থেকেই পঞ্চম দফার ভোটের জন্য পূর্ব বর্ধমানে মনোনয়ন দাখিলের কাজ শুরু হয়েছে। বিভিন্ন রাজনৈতিক দল ইতিমধ্যেই তাদের প্রার্থী ঘোষণা করে দিয়েছে। প্রার্থীরা আর দলের নেতা কর্মীরাও জোর কদমে প্রচারে নেমে পড়েছেন। কিন্তু এখনো জেলার বিভিন্ন প্রান্তে নিজের দলের প্রার্থী পছন্দ নয় এই বার্তা দিয়ে বিজেপির এবং তৃণমূলের বিক্ষুদ্ধ গোষ্ঠী পোস্টার মারছেন এলাকায় এলাকায়। এই নিয়ে দু দলের মধ্যেই অস্বস্তি বাড়ছে। যদিও দু দলের নেতৃত্বই এই ঘটনা কে পাত্তা না দিয়ে এসব বিরোধীদের নোংরামি বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছে।


উল্লেখ্য ভূমিপুত্র প্রার্থীর দাবিতে দলের প্রতীক ও দলনেত্রীর ছবি দিয়ে পোস্টার পড়েছে জামালপুরে। এই পোস্টার ঘিরে জামালপুরে ফের নতুন করে তৃণমূল দলের অন্দরে আলোড়ন সৃষ্টি হয়েছে। কটাক্ষ করতে ছাড়েনি বিরোধীরা। অন্যদিকে, বর্ধমান শহরে কালনা গেট সংলগ্ন এলাকাতেও বিজেপি প্রার্থীর নামে তৃণমূলের সঙ্গে আঁতাত রয়েছে মন্তব্য করে পোস্টার দেখা গিয়েছে।


মঙ্গলবার সকালে জামালপুর বাজার সহ বেশ কয়েকটি জায়গায় এই ধরণের পোস্টার দেখা যায়। পোস্টারে বড় হরফে লেখা রয়েছে জামালপুরের তৃণমূল প্রার্থী আলোক মাঝিকে মানছি না, মানবো না। পাশাপাশি অবিলম্বে জামালপুর বিধানসভায় ভূমিপুত্র প্রার্থীর দাবি জানানো হয়। একই জেলায় অন্য বিধানসভা থেকে প্রার্থীকে মানতে না চেয়ে ভূমিপুত্র প্রার্থী চেয়ে কে বা কারা এই পোস্টার দিল তা নিয়ে জল্পনা শুরু হয়েছে। 


জামালপুর ব্লকের নব নিযুক্ত ব্লক সভাপতি মেহমুদ খান জানান, রাজ্যের ২৯৪টি বিধানসভাতেই একটাই প্রার্থী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাই আলাদা করে ভূমিপুত্র প্রার্থীর দাবি করার কোনো প্রশ্নই ওঠে না। এছাড়া দল যাকে প্রার্থী ঘোষণা করেছে তাকেই মেনে নিয়ে প্রচারে নেমেছে সবাই। তাই তৃণমূলের অন্দরে এনিয়ে কোনো সমস্যা নেই। বিরোধীরাই চক্রান্ত করে বিভ্রান্তি সৃষ্টি করার জন্য এই কাজ করে থাকতে পারে।


অন্যদিকে বিজেপির বর্ধমান জেলার সাধারণ সম্পাদক রামকৃষ্ণ চক্রবর্তী জানান, তৃণমূল একটি বিশৃঙ্খল দল। ওদের সবাই স্বঘোষিত নেতা। পুলিশি প্রহরায় পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি নির্বাচন করতে হয়েছে তৃণমূলকে। দলের ও প্রশাসনের কোনো নিয়ন্ত্রণ নেই। জামালপুরে পায়ের তলায় মাটি হারিয়েছে বুঝতে পেরে নিজেদের দোষ ঢাকতেই এইধরণের কাজ করছে।


 বিজেপিকে দোষারোপ করার প্রতিবাদ জানিয়ে তিনি জানান,  বিজেপি একটি সাংগঠনিক দল । দলের নির্দেশ ছাড়া কোনো কাজ করে না কর্মীরা। আর এইধরণের রাজনীতিতে বিজেপি কোনো দিনই বিশ্বাসী নয়।
অন্যদিকে, বর্ধমান শহরের কানলা গেট সংলগ্ন এলাকায় বর্ধমান দক্ষিণের বিজেপি প্রার্থী সন্দীপ নন্দীকে বিজেপির বি টিম বলে কটাক্ষ করে বেশ কয়েকটি পোস্টার দেখতে পাওয়া গেছে। এই বিষয়ে সন্দীপ নন্দী জানান, রাতের অন্ধকারে যারা লুকিয়ে পোস্টার লাগায় তাদের নিয়ে কোনো মন্তব্য করতে চাই না। এই ধরণের কুকর্ম রাজনৈতিক পরিবেশ নষ্ট করে।



পূর্ব বর্ধমানে মনোনয়ন শুরু হয়ে গেলেও প্রার্থী নিয়ে অসন্তোষ চলছেই
  • Blogger Comments
  • Facebook Comments

0 comments:

Post a comment

Top