Headlines
Loading...
সাংসদের প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী কাজ হয়নি, মেমারীতে মতুয়াদের জোড়া ক্ষোভের মুখে বিধায়িকা

সাংসদের প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী কাজ হয়নি, মেমারীতে মতুয়াদের জোড়া ক্ষোভের মুখে বিধায়িকা


ফোকাস বেঙ্গল ডেস্ক,মেমারী: প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছিল নয়নয় করেও প্রায় দেড় বছর আগে। কিন্তু প্রতিশ্রুতি পূরণ না হওয়ায় শুক্রবার তৃণমূলের প্রাক্তন সাংসদ মমতাবালা ঠাকুরের সামনে ক্ষোভ উগরে দিলেন মেমারীর পারিজাতনগর এলাকার মতুয়ারা। এলাকার মানুষের এই ক্ষোভ দেখে কেন তাঁর দেওয়া প্রতিশ্রুতি পূরণ হয়নি তা জানতে চান মেমারীর বিধায়ক নার্গিস বেগমের কাছে। আবার নার্গিস বেগম দলের অন্যান্য নেতাদের ঘাড়ে দোষ চাপিয়ে নিষ্কৃতি পাবার চেষ্টা করলেও এদিন মমতা বালা ঠাকুরের ভর্ৎসনার মুখে পড়তে হয় নার্গিস বেগমকে। একসময় তিনি বাধ্য হন এলাকা ছেড়ে চলে যেতে। 

শুক্রবার মেমারি পারিজাতনগরে থাকা হরিচাঁদ গুরুচাঁদ মন্দির এর বাৎসরিক অনুষ্ঠানে আসেন ঠাকুরবাড়ির বড়মা তথা বনগাঁ লোকসভা কেন্দ্রের প্রাক্তন সাংসদ মমতা বালা ঠাকুর। এলাকার বাসিন্দারা জানিয়েছেন, প্রায় বছর দেড়েক আগে এই এলাকায় এসে মমতাবালা ঠাকুর বেশ কিছু প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন মতুয়া ভক্তদের। কিন্তু এদিন তাঁর প্রতিশ্রুতি পূরণ না হওয়ায় তার সঙ্গে থাকা মেমারি বিধানসভা কেন্দ্রের বিধায়ক নার্গিস বেগমকে তীব্র ভৎসর্না করেন মমতাবালাঠাকুর। মতুয়া ভক্তদের রোষের মুখে পড়েন বিধায়িকা। এক প্রকার চাপের মুখে পড়ে অনুষ্ঠানস্থল ছেড়ে চলে যান বিধায়িকা। 



এরপর এলাকার মানুষের এই ক্ষোভ প্রশমনে এগিয়ে আসেন মেমারি পুরসভার প্রশাসক স্বপন বিষয়ী ও সহ প্রশাসক সুপ্রিয় সামন্ত। পৌরসভার পক্ষ থেকে একটি কমিউনিটি টয়লেট এই এলাকায় করে দেওয়া হবে বলে তাঁরা জানান। আর এরপরেই নতুন করে চাপান উতোর শুরু হয়ে যায়। কারণ পঞ্চায়েত এলাকার উন্নয়নে যেমন পুরসভা কাজ করে না, তেমনি পঞ্চায়েত পুরএলাকায় কাজ করে না। প্রশ্ন উঠেছে তাহলে কিভাবে এই পঞ্চায়েত এলাকায় মেমারী পুরসভা কমিউনিটি টয়লেট তৈরী করবে ? বস্তুত, এদিন হাতের কাছে মমতাবালা ঠাকুরকে পেয়ে দীর্ঘদিনের প্রত্যাশা পূরণ না হওয়ায় বঞ্চিত মতুয়া ভক্তরা তাঁদের ক্ষোভ উগরে দেন। সামনেই বিধানসভা ভোট। ইতিমধ্যেই গোটা রাজ্য জুড়ে মতুয়াদের মন পেতে শাসক, শাসকবিরোধী সকলেই আদাজল খেয়ে মাঠে নেমে পড়েছে। এমতবস্থায় এদিন মমতাবালা ঠাকুরের সামনে মতুয়াদের ক্ষোভ রীতিমত দুশ্চিন্তায় ফেলেছে শাসকদলকে। শুধু তাই নয় এদিন অনেক মতুয়া ভক্তই ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেছেন, এদিন ছিল তাঁদের সম্পূর্ণ অরাজনৈতিক অনুষ্ঠান। কিন্তু কার্যত তা হয়ে গেল রাজনৈতিক মঞ্চ। 


উল্লেখ্য, এদিন মমতাবালা ঠাকুর পারিজাতনগর থেকে রসুলপুরে রোড শো করেন। এরপর মহেশ ডাঙ্গা ক্যাম্প এলাকায় একটি জনসভা করেন। জনসভায় বক্তব্য রাখতে গিয়ে এনআরসি নিয়ে তীব্র ভাষায় বিজেপি তথা অমিত শাহের সমালোচনা করেন। উল্লেখ্য, পূর্ব বর্ধমান জেলা জুড়েই বেশ কিছু বিধানসভা এলাকায় রয়েছে মতুয়া ভক্তদের বাস। আর ভোটের আগে মতুয়াদের কাছে টানতে মমতা বালা ঠাকুরকে নিয়ে এসে সংশ্লিষ্ট এলাকায় সভা, মিছিলের উদ্যোগ নিয়েছে তৃণমূল নেতৃত্ব।
(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});