728x90 AdSpace

Latest News

Wednesday, 11 November 2020

পূর্ব বর্ধমানে আলুবীজের কালোবাজারীর রমরমা, ১৭০০ টাকার বীজ এখন ৫৫০০ টাকায়


ফোকাস বেঙ্গল ডেস্ক,পূর্ব বর্ধমান:  আমন ধান কাটতে না কাটতেই গোটা পূর্ব বর্ধমান জেলা জুড়ে শুরু হয়ে গেল আলু চাষের প্রস্তুতি। কিন্তু আলুর বীজ নিয়ে ব্যাপক কালোবাজারী শুরু হয়ে গেলেও এখনও সরকারী কোনো হস্তক্ষেপ না হওয়ায় রীতিমত হতাশ আলুচাষীরা। চলতি নভেম্বর- ডিসেম্বর মাস জুড়েই একদিকে আমন ধান কেটে ঘরে তোলার কাজ চলছে। অন্যদিকে ধান ওঠার পরই সেখানে আলু চাষের জন্য জমি তৈরীর কাজ চলছে।


 কিন্তু বাজারে অমিল আলুবীজ। যা পাওয়া যাচ্ছে তা গতবারের তুলনায় ২ থেকে ৩ গুণ বেশি দাম। ফলে ভয়াবহ দুশ্চিন্তায় পড়েছেন চাষীরা। পূর্ব বর্ধমানের আলু চাষের একচেটিয়া এলাকা মেমারী জামালপুর সহ গোটা জেলা জুড়েই চলছে আলু বীজ নিয়ে হাহকার। জামালপুরের চাষী সত্যনারায়ণ বাগ জানিয়েছেন, এবছর তিনি ৮ বিঘে জমিতে আলু চাষ করার প্রস্তুতি নিয়েছেন। কিন্তু আলু বীজ কিনতে গিয়ে তিনি চমকে উঠেছেন। গতবছর যেখানে ৫০কেজি আলু বীজের বস্তার দাম ছিল ১৭০০ থেকে ১৮০০ টাকা – এবারে তা ন্যূনতম ৪৭০০ থেকে ৫৫০০ টাকা দাম চাইছেন ব্যবসায়ীরা। ফলে তাঁরা পড়েছেন চরম সংকটে। 


কারণ এই দামে আলুবীজ কিনে চাষ করে বিঘে প্রতি খরচ পড়ে যাবে ৩৩০০০ থেকে ৩৫ হাজার টাকার কাছাকাছি। স্বাভাবিকভাবেই এই খরচের পর আলুর দাম পাওয়া যাবে তো? কারণ চলতি বছরে আলুর যে দাম উঠেছে তার জেরে গতবারের থেকেও আলু চাষের এলাকা বাড়ার সম্ভাবনা। কিন্তু আলুবীজ নিয়ে চলছে চরম কালোবাজারী। শুধু সত্যনারায়ণবাবুই নয় জামালপুরের আরও এক চাষী শরদিন্দু কাপাসি জানিয়েছেন তিনি ৪ বিঘে জমিতে আলু চাষ করতে চাইছেন। কিন্তু আলুবীজের যা দাম তাতে তিনি ভয়াবহ দুশ্চিন্তায় পড়েছেন।


 তিনি জানিয়েছেন, আলু বীজ নিয়ে চুড়ান্ত কালোবাজারি চললেও এখনও সরকারী কোনো ভূমিকা তাঁরা দেখতে পাচ্ছেন না। সরকার এই কালোবাজারী রুখতে এখনও কোনো ব্যবস্থাই নেয়নি। ফলে বহু চাষী মাথায় হাত দিয়ে বসে পড়েছেন। অনেক চাষীই যাঁরা গতবারের চাষের জন্য ঋণগ্রস্ত, এবারে আলু চাষ করে ঋণ পরিশোধের ভাবনা করেছিলেন তাঁরা আত্মহত্যার পথও বেছে নেবেন – এই পরিস্থিতিতে।
পূর্ব বর্ধমানে আলুবীজের কালোবাজারীর রমরমা, ১৭০০ টাকার বীজ এখন ৫৫০০ টাকায়
  • Blogger Comments
  • Facebook Comments

0 comments:

Post a comment

Top