Headlines
Loading...
বর্ধমানে তৃণমূল যুব কর্মীদের ভোটার লিস্টের কাজ করাকে নাটক বলে কটাক্ষ দলেরই সাধারণ সম্পাদকের, আলোড়ন

বর্ধমানে তৃণমূল যুব কর্মীদের ভোটার লিস্টের কাজ করাকে নাটক বলে কটাক্ষ দলেরই সাধারণ সম্পাদকের, আলোড়ন


ফোকাস বেঙ্গল ডেস্ক,পূর্ব বর্ধমান: খোদ দলের জেলা সভাপতি যখন একের পর এক দলীয় মিটিংয়ে দলীয় নেতা কর্মীদের আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনকে মাথায় রেখে ভোটার লিষ্ট তৈরীর জন্য অবিলম্বে ঝাঁপিয়ে পড়ার আবেদন জানিয়েছেন, সেই সময় বর্ধমান শহরেই ভোটার লিষ্ট নিয়ে কাজ করাকে তৃণমূলেরই এক নেতা - নাটকবাজি চলছে বলে বিস্ফোরক মন্তব্য করায় ব্যাপক আলোড়ন শুরু হয়ে গেল। 


আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনকে পাখির চোখ করে ইতিমধ্যেই সমস্ত রাজনৈতিক দলগুলি ময়দানে কোমড় বেঁধে নেমে পড়েছে। স্বভাবতই রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেসও তৃতীয়বারের জন্য জয় সুনিশ্চিত করতে উঠেপড়ে লেগেছে। সম্প্রতি পূর্ব বর্ধমান জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি তথা রাজ্যের মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ দলীয় কর্মীদের ভোটার লিষ্ট সংশোধনের কাজ করার জন্য কর্মী-নেতাদের আবেদন জানিয়েছেন। এমনকি সদ্য বিজেপি ছেড়ে তৃণমূলে আসা একদা বর্ধমানের সিপিএমের দুঁদে নেতা আইনুল হকও সম্প্রতি দলের একটি কর্মসূচিতে বক্তব্য রাখতে গিয়ে বলেছিলেন, ২০০৭ থেকে ২০১১ পর্যন্ত প্রত্যেকটি নির্বাচনে তৃণমূল কংগ্রেসের কর্মীরা ভোটার লিস্ট তৈরি করার ক্ষেত্রে, বুথের সংগঠন তৈরির ক্ষেত্রে যে লড়াই করেছিলেন সেই লড়াইয়েই তৃণমূল সিপিএম কে হারিয়ে দিয়েছিল। ২০১১-র নির্বাচনে সিপিএম হয়তো হেরেছে, কিন্তু সিপিএম ২০০৭ এই তৃণমূলের কাছে মানসিকভাবে হেরে গিয়েছিল। আর আজ ঠিক সেই জায়গায় তৃণমূলের কর্মীদের ফের মনস্তাত্ত্বিক ভাবে দুর্বল করার চেষ্টা করা হচ্ছে। 


আইনুল বাবুর সেদিনের বক্তব্যের পরই বর্ধমানের তৃণমূল কর্মীদের মধ্যে নতুন উন্মাদনা তৈরি করেছে। দলের যুব সংগঠন ঝাঁপিয়ে পড়েছে ভোটার লিস্ট সংশোধনের কাজ থেকে প্রতিটি বুথের নারীনক্ষত্র খুঁজে বের করার কাজে। আর দলের নির্দেশে যখন ভোটার লিস্ট তৈরির কাজে উঠেপড়ে ময়দানে নেমেছেন কর্মীরা, ঠিক সেই সময় দলেরই একজন সাধারণ সম্পাদক এই কাজকে রীতিমত নাটক করছে বলে কটাক্ষ করায় শহর জুড়ে আলোড়ন তৈরি হল। 


বুধবার বর্ধমান শহরের জেলখানা মোড় এলাকায় তৃণমূলের একটি দলীয় পার্টি অফিসে তৃণমূল যুব কংগ্রেসের ওয়ার্ড কমিটির নেতা-কর্মীরা যখন ভোটার লিষ্টের কাজ শুরু করলেন সেই সময় তাকে ঘিরেই শুরু হয়েছে তৃণমূলের চরম গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব। উল্লেখ্য, সম্প্রতি এই পার্টি অফিসের দখলদারীকে কেন্দ্র করে তৃণমূলের আব্দুর রব এবং মহম্মদ আসরাফউদ্দিন গোষ্ঠীর মধ্যে তুমুল বোমাবাজি, সংঘর্ষ ঘটে। এই ঘটনায় ওই অফিস বন্ধ হয়ে যায়। বুধবারই ওই অফিসটি খোলে। আর সেখানেই এদিন তৃণমূল যুব কংগ্রেসের সভাপতি রাসবিহারী হালদারের নির্দেশে ৩নং ওয়ার্ড যুব কংগ্রেস কমিটির সদস্যরা ভোটার তালিকার কাজ শুরু করে দেন। 


এদিন ওয়ার্ড কমিটির সভাপতি সেখ সামসের, জেলা সম্পাদক সেখ আসিফ প্রমুখরা দাবী করেছেন, জেলা নেতৃত্বের নির্দেশে এই ওয়ার্ডের ১৩টি পার্টের নেতাদের নিয়ে তাঁরা ভোটার তালিকার কাজ শুরু করেছেন। বুধবার থেকেই তাঁরা বাড়ি বাড়ি গিয়ে এই তালিকা সংশোধনের কাজ শুরু করবেন। সেখ আসিফ জানিয়েছেন, এজন্য কে কি বলল তাতে তাঁরা কান দিচ্ছেন না। অন্যদিকে, আব্দুর রবের অফিস বলে পরিচিত এই অফিসে বসেই এদিনের এই ভোটার তালিকার কাজকে রীতিমত নাটকবাজি হচ্ছে বলে জানিয়েছেন তৃণমূলের জেলা সম্পাদক খোদ আব্দুর রব। তিনি জানিয়েছেন, গোটাটাই বালখিল্য কাজ হচ্ছে। কিভাবে ভোটার তালিকার কাজ করতে হয় তাই যারা জানে না তারাই এদিন এই কাজ করতে এসেছে। যারা ৩নং ওয়ার্ডের বুথই চেনেনা তারাই এই কাজ করতে এসেছে। গোটাটাই নাটকবাজি হচ্ছে।

0 Comments: