728x90 AdSpace

Latest News

Tuesday, 29 September 2020

বর্ধমানে সরকারী দপ্তরে ৪০ শতাংশ গাড়িই বেআইনীভাবে চলছে!


ফোকাস বেঙ্গল ডেস্ক,পূর্ব বর্ধমান: সরকারী দপ্তরে দীর্ঘদিন ধরেই বেসরকারী গাড়ি ভাড়া নিয়ে দুর্নীতি চলে আসলেও এবং এব্যাপারে সরকারী স্তরে আবেদন নিবেদন করা হলেও পরিস্থিতির কোনো উন্নতি হয়নি। আর এই দুর্নীতির ফলে বর্তমানে রীতিমত সংকটের মুখে পড়েছেন জয়েণ্ট কাউন্সিল অফ লাক্সারী ট্যাক্সি এ্যাসোসিয়েশন। 


সংগঠনের পূর্ব বর্ধমান জেলার আহ্বায়ক বিশ্বজিত দে জানিয়েছেন, বর্তমানে এই জেলায় সরকারী বিভিন্ন দপ্তরে যে গাড়ি ব্যবহার করা হয় তার মধ্যে প্রায় ৪০ শতাংশ গাড়িই ব্যক্তিগত মালিকানার। বাণিজ্যিকভাবে চালানোর জন্য তাঁদের অনুমতি নেই। ব্যক্তিগত ব্যবহারের জন্য সেই গাড়িই সরকারী দপ্তরে বছরের পর বছর ভাড়া দেওয়া হচ্ছে। তিনি জানিয়েছেন, এব্যাপারে তাঁরা দীর্ঘদিন ধরেই ওই গাড়িগুলিকে বাতিল করার দাবী জানিয়ে আসছেন। কারণ এই ধরণের ব্যক্তিগত গাড়ি বাণিজ্যিকভাবে ভাড়া খাটানো রীতিমত দুর্নীতি।


 

তিনি জানিয়েছেন, তাঁরা বাণিজ্যিকভাবে গাড়ি চালানোর জন্য সরকারকে তথা পরিবহণ দপ্তরকে লাক্সারি ট্যাক্সির ট্যাক্স, পারমিট ফি, সিএফ প্রভৃতি দিয়ে আসছেন। অথচ ব্যক্তিগত মালিকানার গাড়িগুলি বাণিজ্যিকহারে এসব না দিয়েই দিনের পর দিন ব্যবসা করছেন। বিশ্বজিতবাবু জানিয়েছেন, গত ১২ বছর ধরে তাঁদের ভাড়া বৃদ্ধি হয়নি। 

অথচ যে সমস্ত গাড়ি বিদ্যুত দপ্তরে চলে সম্প্রতি তাদের ভাড়া বৃদ্ধি করা হয়েছে। কিন্তু তাঁদের ভাড়া বৃদ্ধি হয়নি। তাই অবিলম্বে তাঁদের ভাড়া বৃদ্ধি করে ১২০০ টাকা করার জন্য রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী, পরিবহণ মন্ত্রী সহ সংশ্লিষ্ট দপ্তরে আবেদন জানিয়েছেন। কারণ চলতি অগ্নিমূল্য বাজারে তাঁদের পক্ষে আর এই কম ভাড়ায় গাড়ি চালানো সম্ভব হচ্ছে না।


বর্ধমানে সরকারী দপ্তরে ৪০ শতাংশ গাড়িই বেআইনীভাবে চলছে!
  • Blogger Comments
  • Facebook Comments

0 comments:

Post a comment

Top