728x90 AdSpace

Latest News

Sunday, 12 July 2020

বর্ধমান মেডিকেল কলেজ থেকে হাসপাতাল রোডের অবস্থা বেহাল, ক্ষোভ ছাত্রছাত্রী থেকে সাধারণের


ফোকাস বেঙ্গল ডেস্ক,বর্ধমান: খোদ বর্ধমান পৌর এলাকার গুরুত্বপূর্ণ অন্যতম রাস্তা বর্ধমান মেডিকেল কলেজ রোড। এই রাস্তার ওপরেই রয়েছে নার্সিং হোস্টেল থেকে শুরু করে বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ের একাধিক ছাত্রাবাস। এমনকি প্রতিদিন এই রাস্তা দিয়ে যাতায়াত করেন পার্শবর্তী দু তিনটি ওয়ার্ডের বাসিন্দারা। হাসপাতালে আসার জন্য মুমুর্ষ রোগী থেকে এম্বুলেন্সের আসা যাওয়া তো এই রাস্তায় ২৪ ঘন্টা লেগেই রয়েছে। কিন্তু সেই রাস্তার হালই বেহাল। 


রীতিমত খানাখন্দে ভরে উঠেছে। দুচাকা থেকে চার চাকা গাড়ির যাতায়াত রীতিমত বিভীষিকা হয়ে পড়েছে। মাত্র বছর দেড়েক আগেও এই রাস্তা নিয়ে নার্সিং, মেডিকেলের ছাত্র ছাত্রী থেকে সাধারণ মানুষের মনে ক্ষোভের অন্ত ছিল না। খোদ জেলাশাসকের কাছেও এই রাস্তা নিয়ে অভিযোগ দায়ের হয়। তারপর রাস্তা সংস্কার হলেও বছর ঘুরতে না ঘুরতেই ফের রাস্তার হাল যাকার তাই। খানাখন্দে ভর্তি। জমা জলে সৃষ্টি হয়েছে বেজায় বিপত্তি। 


উল্লেখ্য, বর্ধমান শহরের নার্স কোয়ার্টার মোড় থেকে  মেডিকেল কলেজ হোস্টেলের গেট পর্যন্ত রাস্তার হাল অত্যন্ত খারাপ। রাস্তার মাঝেই বড়বড় গর্ত। অল্প বৃষ্টিতেই এই রাস্তায় জল জমে যায়। কাদা প্যাচপ্যাচ অবস্থা সারা রাস্তা জুড়ে। এই রাস্তা দিয়েই রোজ জলকাদা পেড়িয়ে আসা যাওয়া করতে হয় মেডিকেল কলেজের ছাত্র,নার্সিং কলেজের ছাত্রীদের। বর্ধমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ডাক্তার কোয়ার্টারও এই রাস্তাতেই। ফলে চিকিৎসকদেরও এই রাস্তাতে দূর্ভোগের শিকার হতে হয় নিত্যদিন। 


বর্ধমান পুরসভা বছরখানেক আগে এই রাস্তা সংস্কার করে দেয়।  কিন্তু এক বছরের মধ্যেই ফের রাস্তা খারাপ হওয়ায় সাধারণ মানুষের মধ্যে ক্ষোভের  সৃষ্টি হয়েছে। ওই রাস্তা দিয়ে যাতায়াত করেন সৌমি সেন,গোপাল রাজবংশীরা বলেন, নিত্য প্রয়োজন ছাড়া ওই রাস্তা দিয়ে অনেকে রোগী নিয়ে বর্ধমান হাসপাতাল যাতায়াত করেন। হাসপাতাল থেকেও অনেক রোগী মেডিকেল কলেজে বিভিন্ন রকম পরীক্ষা করাতে আসেন। ফলে এই রাস্তা  দ্রুত সংস্কার করে দেওয়া উচিত। রাস্তা খারাপ নিয়ে সরব হয়েছে হাসপাতালের চিকিৎসকরাও। বিষয়টি নিয়ে বর্ধমান পৌরসভার এক্সিকিউটিভ অফিসার অমিত গুহ জানান, রাস্তার বিষয়টি খতিয়ে দেখে দ্রুত পদক্ষেপ করা হবে।

বর্ধমান মেডিকেল কলেজ থেকে হাসপাতাল রোডের অবস্থা বেহাল, ক্ষোভ ছাত্রছাত্রী থেকে সাধারণের
  • Blogger Comments
  • Facebook Comments

0 comments:

Post a comment

Top