728x90 AdSpace

Latest News

Wednesday, 1 April 2020

করোনা মোকাবিলায় মুখ্যমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে এবার কন্যাশ্রীর টাকা তুলে দিলেন বর্ধমানের ছাত্রী


ফোকাস বেঙ্গল ডেস্ক,পূর্ব বর্ধমান: করোনা মোকাবিলায় এবার কন্যাশ্রী প্রকল্পের টাকা থেকে ১০ হাজার টাকা মুখ্যমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে দান করলেন এক কলেজ পড়ুয়া। একইসঙ্গে ওই কলেজ পড়ুয়ার বোন অষ্টম শ্রেণীর ছাত্রী সেই টিফিনের পয়সা বাঁচিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে অর্থ দান করল। মঙ্গলবার বর্ধমান শহরের লক্ষ্মীপুর মাঠ বেনফেড গলির বাসিন্দা ইশিকা ব্যানার্জী এদিন জেলাশাসকের হাতে তাঁর কন্যাশ্রীর ২৫ হাজার টাকা থেকে ১০হাজার টাকা মুখ্যমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে দান করল। ইশিকা জানিয়েছে, করোনা ভাইরাস উদ্ভূত পরিস্থিতির জেরে বহু ছাত্রছাত্রী নানাবিধ অসুবিধায় পড়েছে। তাদের খাওয়াদাওয়া সহ পড়াশোনায় যাতে কিছু সাহায্য করা যায় তার জন্যই সে এই অর্থ মুখ্যমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে দান করল।


উল্লেখ্য, ইশিকা বর্ধমানের মানকড় কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী। অন্যদিকে, এদিন দিদির সঙ্গেই তার মূল্যবান সঞ্চয়কে তুলে দিল ঈশাণী ব্যানাজ্জী। সে বর্ধমান হরিসভা হাইস্কুলের অষ্টম শ্রেণীর ছাত্রী। টিফিনের পয়সা বাঁচিয়ে সে এদিন জেলাশাসকের হাতে ১১১১ টাকা তুলে দিয়েছে মুখ‌মন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে। ঈশাণী জানিয়েছেন, তার এই ক্ষুদ্র প্রয়াস যদি অন্য ছাত্রছাত্রীদের কাজে লাগে তাহলেই সে খুশী হবে।


শুধু এটাই নয় এদিন ইশিকা ও ঈশাণীর মা গৃহবধু মিঠু ব্যানার্জ্জীও মুখ্যমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে ১লক্ষ টাকা দান করেছেন। উল্লেখ্য, ইশিকার নামেই তাদের পারিবারিক ব্যবসা রয়েছে। সেখান থেকেই করোনা আক্রান্তদের চিকিৎসার জন্য এই অর্থ তিনি দান করেছেন বলে জানিয়েছেন মিঠুদেবী। এদিন তাঁদের সঙ্গে ছিলেন মিঠুদেবীর ননদ মিতা মুখার্জ্জীও। অন্যদিকে, এদিনই জয়হিন্দ বাহিনীর পক্ষ থেকে ফাল্গুনী ব্যানার্জ্জী ও বিশ্বজিৎ মন্ডল ২১ হাজার টাকা করে মোট ৪২ হাজার টাকা তুলে দিয়েছেন জেলাশাসকের হাতে। উপস্থিত ছিলেন জয় হিন্দ বাহিনীর জেলা সভাপতি রবিন নন্দী, জেলাপরিষদের মেন্টর উজ্জ্বল প্রামানিক সহ অন্যান্যরা।


করোনা মোকাবিলায় মুখ্যমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে এবার কন্যাশ্রীর টাকা তুলে দিলেন বর্ধমানের ছাত্রী
  • Title : করোনা মোকাবিলায় মুখ্যমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে এবার কন্যাশ্রীর টাকা তুলে দিলেন বর্ধমানের ছাত্রী
  • Posted by :
  • Date : April 01, 2020
  • Labels :
  • Blogger Comments
  • Facebook Comments

0 comments:

Post a comment

Top