Headlines
Loading...
করোনা পরিস্থিতিতে সংকটে ছাত্রছাত্রীরা, অভিনব উদ্যোগ গলসী কলেজ ও এস এফ আইয়ের

করোনা পরিস্থিতিতে সংকটে ছাত্রছাত্রীরা, অভিনব উদ্যোগ গলসী কলেজ ও এস এফ আইয়ের


ফোকাস বেঙ্গল ডেস্ক,পূর্ব বর্ধমান: করোনা আতংকে যখন সমস্ত মানুষকেই ঘরবন্দি করে তুলেছে, সেই সময় ভয়াবহ আর এক সংকটের দিকে এগিয়ে চলেছে অসংখ্য ছাত্রছাত্রী। চলতি বছরে মাধ্যমিকের পরীক্ষা নির্বিঘ্নে হলেও উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষায় কার্যত তিরে এসে তরী ডুবেছে। আদপেই এই বকেয়া পরীক্ষা কবে হবে তা এখনও নিশ্চিত নয়। নিশ্চিত নয় একই অবস্থার শিকার হওয়ায় একাদশ শ্রেণীর ছাত্রছাত্রীরাও। এরই মাঝে কলেজগুলিতে প্রথম সেমিষ্টারের দিন এগিয়ে আসছে। এখনও পর্যন্ত যা খবর তাতে যদি এপ্রিল মাসের মাঝামাঝি সময় এই করোনার পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়, তবেই এপ্রিলের মাঝামাঝি কিংবা শেষের দিকে কলেজগুলির প্রথম সেমিষ্টারের পরীক্ষা হতে পারে। কিন্তু তাও সবটাই সম্পূর্ণ অনিশ্চিত। 

করোনা আক্রান্তদের গতিপ্রকৃতি থেকে আশংকা তৈরী হচ্ছে আগামী এপ্রিল মাস তো নয়ই মে মাসের আগে এই পরিস্থিতি কতটা স্বাভাবিক হবে তাই এখন বড় প্রশ্ন। এদিকে, এই অবস্থায় অধিকাংশ কলেজগুলিতেই সিলেবাস শেষ হয়নি। উপরন্তু কলেজ খুললেই পরীক্ষা। ফলে ছাত্রছাত্রীরা পড়েছেন গভীর সংকটে। আর ছাত্রছাত্রীদের এই সংকটের হাত থেকে কিছুটা লাঘব দিতে গোটা রাজ্যের মধ্যে প্রথম নজীর গড়ল পূর্ব বর্ধমানের গলসী কলেজ। 

গলসী কলেজের অধ্যক্ষ কুমারীশ চ্যাটার্জ্জী জানিয়েছেন, ছাত্রছাত্রীদের কথা চিন্তা করেই তাঁরা শনিবার থেকে কলেজের নিজস্ব ওয়েবসাইটে চালু করে দিয়েছেন ই-ক্লাস। তিনি জানিয়েছেন, এই ই-ক্লাসের মাধ্যমে ছাত্রছাত্রীদের লার্নিং মেটেরিয়াল তুলে ধরা হচ্ছে ওয়েবসাইটে। কলেজের বিষয়ভিত্তিক অধ্যাপকরা তাঁদের টিউটোরিয়াল বক্তব্য ভিডিও-র মাধ্যমে তা আপলোড করতে শুরু করেছেন। শনিবারই রাষ্ট্রবিজ্ঞানের অধ্যাপক ড. অভিষেক কর্মকার তাঁর বক্তব্য আপলোড করেছেন। ওয়েবসাইটের পাশাপাশি ইউ টিউবেও সংযুক্ত করা হচ্ছে এই লার্নিং মেটেরিয়াল। প্রায় প্রত্যেকটি অধ্যাপকই নিজের নিজের বিষয়ে তা তুলে ধরছেন। 


কুমারীশবাবু জানিয়েছেন, যেহেতু চলতি করোনা পরিস্থিতির জেরে ঘর থেকে বার হতে পারবে না ছাত্রছাত্রীরা। তাই তারা যাতে ঘরে বসেই পরীক্ষার প্রস্তুতি নিতে পারে তার জন্যই এই উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। আর কলেজের এই উদ্যোগে খুশী ছাত্রছাত্রীরাও। ছাত্র রামিজ রাজা জানিয়েছেন, কলেজ বন্ধ হওয়ায় যে ঘাটতি ছিল তা অনেকটাই পুষিয়ে যাবে এই উদ্যোগে। 

এদিকে, শুধু গলসী কলেজই নয়, এরই পাশাপাশি ভারতের ছাত্র ফেডারেশনও করোনা উদ্ভূত পরিস্থিতিতে ছাত্রছাত্রীদের পাশে এসে দাঁড়িয়েছে। শনিবার থেকে এসএফআই-এর পূর্ব বর্ধমান জেলা কমিটির উদ্যোগে ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার্থীদের সুবিধার্থে সন্ধ্যা ৭ টা থেকে ভারতের ছাত্র ফেডারেশন পূর্ব বর্ধমান জেলা কমিটির অফিসিয়াল ফেসবুক পেজ থেকে শুরু হয়েছে ফেসবুক ডিজিটাল ক্লাস। এখানে ক্লাস নিচ্ছেন এসএফআই-এর প্রাক্তনী যাঁরা বর্তমানে শিক্ষক ও বর্তমান এর স্কলার্স ছাত্র কর্মীরা। এরই পাশাপাশি হোয়াটস্ অ্যাপের মাধ্যমেও স্টাডি মেটেরিয়াল দেবার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। ফেসবুক লাইভের মাধ্যমে ডিজিটাল ক্লাস চালুর সিন্ধান্ত ছাড়াও জেলার অভ্যন্তরে যে কোন ছাত্রের যেকোন অসুবিধায় পাশে দাঁড়ানোর জন্য চালু করা হয়েছে হেল্প লাইন ডেস্ক। 

0 Comments: