Headlines
Loading...
ছোটবেলায় মেনিনজাইটিস রোগ সেরেছিল জগতগৌরীর পুষ্পে, বর্ধমানে আবেগঘন পঞ্চায়েতমন্ত্রী

ছোটবেলায় মেনিনজাইটিস রোগ সেরেছিল জগতগৌরীর পুষ্পে, বর্ধমানে আবেগঘন পঞ্চায়েতমন্ত্রী


ফোকাস বেঙ্গল ডেস্ক,পূর্ব বর্ধমান: ছোটবেলায় তাঁর মেনিনজাইটিস হয়েছিল। সেই সময় তাঁকে জগতগৌরী মন্দিরে শুয়ে রেখেছিলেন তাঁর বাবা। তারপরেই তিনি ঠিক হয়ে যান। সেই থেকে এখনও দেহে জগতগৌরী মাতার পুষ্প বহন করে চলেছেন। তাই তিনি প্রতিবছর অন্তত একবার চেষ্টা করেন তাঁর মাতুলালয় বর্ধমানের মণ্ডলগ্রামে আসতে। কিন্তু সবসময় তিনি পারেন না। আক্ষেপ থেকে যায়। 

বুধবার বর্ধমানের মেমারী থানার মণ্ডলগ্রামে একটি রাস্তার উদ্বোধন করতে এসে এভাবেই আবেগপ্রবণ হয়ে পড়লেন রাজ্যের পঞ্চায়েতদপ্তরের মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়। একইসঙ্গে তাঁর পুষ্পের জেরে রোগ নিরাময়ের বক্তব্যকে ঘিরে শুরু হয়েছে বিতর্কও। উল্লেখ্য, বুধবার পূর্ব বর্ধমান জেলায় মন্তেশ্বর বিধানসভা মেমারি দু'নম্বর ব্লকের অধীন মন্ডলগ্রামের ভড়ারপাড় থেকে জগতগৌরি তলা পর্যন্ত পিচ রাস্তার উদ্বোধন করেন সুব্রতবাবু। এই রাস্তার নামকরণ করা হয়েছে সুব্রতবাবুর মা তথা মণ্ডলগ্রামের মেয়ে প্রয়াত সাবিত্রী মুখোপাধ্যায়ের নামে। 

এরই পাশাপাশি এদিন তিনি ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর, স্বামী বিবেকানন্দ, এবং সুব্রতবাবুর মায়ের একটি আবক্ষ মূর্তিরও উন্মোচন করেন। অন্যান্যদের মধ্যে এই অনুষ্ঠানে হাজির ছিলেন রাজ্যের ক্ষুদ্র কুটির শিল্পমন্ত্রী স্বপন দেবনাথ, মন্তেশ্বর বিধায়ক সৈকত পাঁজা, জেলা পরিষদের সভাধিপতি শম্পা ধারা, সহ-সভাধিপতি দেবু টুডু, মেন্টর উজ্জ্বল পরামানিক, জেলা পরিষদের কর্মাধ্যক্ষ নারায়ণ হাজরা, মহম্মদ ইসমাইল সহ বিশিষ্টজনেরা। 

সুব্রতবাবু এদিন বলেন, ছোটবেলার অনেক স্মৃতি আজও তার আবছা মনে পড়ে। তিনি বলেন, তাঁর বাবার কাছ থেকে শুনেছেন, তিনি ছোটবেলায় মেনিনজাইটিসে আক্রান্ত হয়েছিলেন। সেই সময় এই এলাকার জাগ্রত জগতগৌরী মায়ের মন্দিরে তাঁকে শুইয়ে রেখে তাঁর দেহে জগতগৌরীদেবীর পুষ্প বেঁধে দেওয়া হয়েছিল। তারপর থেকেই তিনি সুস্থ আছেন, বেঁচে গেছেন। আজও তিনি ওই পুষ্প বহন করে চলেছেন।

0 Comments: