Headlines
Loading...
পূর্ব বর্ধমানে করোনা মোকাবিলায় এবার অনাময় কে কোভিড হাসপাতাল তৈরীর উদ্যোগ

পূর্ব বর্ধমানে করোনা মোকাবিলায় এবার অনাময় কে কোভিড হাসপাতাল তৈরীর উদ্যোগ


ফোকাস বেঙ্গল ডেস্ক,পূর্ব বর্ধমান: করোনা ভাইরাস আক্রমণ ঠেকাতে এবার বড়সড় পদক্ষেপ গ্রহণ করল রাজ্য সরকার। বৃহস্পতিবারই রাজ্য স্বাস্থ্য সচিবের সঙ্গে অন্যান্য সচিবের উপস্থিতিতে প্রতিটি জেলার স্বাস্থ্য কর্তাদের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সে করোনা নিয়ে সর্বশেষ পরিস্থিতির পর্যালোচনা করা হয়। আর এই পর্যালোচনার পরই প্রতিটি জেলাতে একটি করে কোভিড হাসপাতাল তৈরী করার প্রাথমিক নির্দেশ দেওয়া হয়। এব্যাপারে কোন জেলার কি কি পরিকাঠামো রয়েছে এবং নয়া কোভিড হাসপাতাল তৈরী কোথায় করা হবে, সেখানকার পরিকাঠামো প্রভৃতি বিষয় নিয়ে দ্রুত শুক্রবারের মধ্যেই রিপোর্ট পাঠাতে বলা হয়েছে রাজ্য স্বাস্থ্যভবনে। 

জানা গেছে, গোটা দেশ জুড়ে উদ্ভূত পরিস্থিতিতে যেহেতু আক্রান্তের সংখ্যা ক্রমশই বাড়ছে তাই দ্রুত আক্রান্তদের চিকিৎসা দেবার প্রয়োজনেই এই কোভিড হাসপাতাল তৈরীর পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে রাজ্য সরকার। বর্ধমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ডেপুটি সুপার কুনালকান্তি দে জানিয়েছেন, কোভিড হাসপাতাল তৈরীর বিষয়টি এখন একেবারেই প্রাথমিক পর্যায়ে রয়েছে। 

তিনি জানিয়েছেন, বৃহস্পতিবার এব্যাপারে প্রাথমিক আলোচনা হয়েছে। ডা. দে জানিয়েছেন, এব্যাপারে জেলাশাসক সহ জেলার আধিকারিকদের নিয়ে তাঁরা আলোচনা করে দ্রুত একটি রিপোর্ট স্বাস্থ্যভবনে পাঠিয়ে দেবেন। তিনি জানিয়েছেন, সেক্ষেত্রে তাঁরা চাইছেন অনাময় সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালকেই পুরোপুরি অধিগ্রহণ করে এই কোভিড হাসপাতাল তৈরী করতে। কারণ অনাময় যেহেতু সুপার স্পেশালিটি হাসপাতাল হওয়ায় এখানে অনেকটাই পরিকাঠামো তৈরী রয়েছে। তাই অনাময়ে এই কোভিড হাসপাতাল হলে তা সুবিধাজনক হবে। 

কুনালকান্তি বাবু জানিয়েছেন, আগামী দু এক দিনের মধ্যেই অনাময়ে এই প্রক্রিয়া শুরু হবে। প্রাথমিকভাবে রাজ্য মুখ্য স্বাস্থ্য সচিব জানিয়েছেন, নয়া এই কোভিড হাসপাতালে বিশেষত শিশুদের ও বয়স্কদের জন্য ন্যূনতম ৩০টি বেড থাকতে হবে। উল্লেখ্য, করোনা ভাইরাস নিয়ে উদ্ভূত পরিস্থিতি মোকাবিলায় পরিকল্পনায় থাকা এই কোভিড হাসপাতাল তৈরী হবে কার্যতই অস্থায়ীভাবে কয়েকমাসের জন্য। 

উল্লেখ্য, করোনা ভাইরাসে এখনও পর্যন্ত পূর্ব বর্ধমান জেলায় বৃহস্পতিবার পর্যন্ত মোট ২৪৩জন বিদেশীকে হোম করেনণ্টাইনে রাখা হয়েছিল। জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, এর মধ্যে ২৮জনকে ইতিমধ্যেই হোম করেণ্টাইন থেকে মুক্ত করা হয়েছে। বর্তমানে ২৭৯জন হোম করেণ্টাইনে রয়েছেন। অন্যদিকে, জেলায় মোট ২৮৫৩৩ জনকে হোম করেণ্টাইনে রাখা হয়েছে। যাদের মধ্যে ৩৬০৭ জন রয়েছেন যাঁরা বাইরে থেকে জেলায় এসেছেন। 

অপরদিকে, বর্ধমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে বৃহস্পতিবার পর্যন্ত আইসোলেশনে থাকা ৫ জনের মধ্যে ৩জনকে ছুটি দেওয়া হয়েছে। এখনও ২জন আইসোলেশনে রয়েছেন। একইভাবে কাটোয়া মহকুমা হাসপাতালে আইসোলেশনে ছিলেন মোট ১১জন। তার মধ্যে বৃহস্পতিবার নতুন করে ২জনকে ভর্তি করা হয়েছে। এদের মধ্যে ৭জনকে ছুটি দেওয়া হয়েছে। ৬জন এখনও আইসোলেশনে রয়েছে। অন্যদিকে, কালনা মহকুমা হাসপাতালে ছিলেন ৩ জন আইসোলেশনে। বৃহস্পতিবার নতুন করে আরও ৪জন ভর্তি হয়েছেন। ছুটি দেওয়া হয়েছে ১জনকে। এখনও ভর্তি রয়েছেন ৬জন। জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, এখনও পর্যন্ত পূর্ব বর্ধমান জেলায় একটিও করোনা পজিটিভ কেস পাওয়া যায়নি।

0 Comments: