728x90 AdSpace

Latest News

Friday, 20 December 2019

দামোদর, অজয়ের পর এবার খড়ি নদী থেকে দেদার অবৈধ বালি পাচারের অভিযোগ ঘিরে চাঞ্চল্য


ফোকাস বেঙ্গল ডেস্ক,পূর্ব বর্ধমান:  দামোদর নদ, অজয় বা দারকেশ্বর নদী থেকে বালি পাচার নয়। এবার সম্পূর্ণ নিয়ম ভেঙে খড়ি নদী থেকে দেদার বালি তোলার অভিযোগকে ঘিরে ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়ালো। যদিও গোটা ঘটনায় কিছুই জানা নেই বলে দায় এড়িয়ে গেছেন জেলা প্রশাসনের সংশ্লিষ্ট কর্তারা। 

অভিযোগ উঠেছে, বর্ধমান জেলার ভেতর দিয়ে প্রবাহিত খড়ি নদী থেকে সম্পূর্ণ অবৈধভাবে বালি তুলে তা পাচার করছেন একশ্রেণীর বালি কারবারীরা। ইতিমধ্যেই এই ঘটনায় আউশগ্রাম থানার পুলিশ তদন্তে নেমেছে। মাঝে মাঝেই তাঁরা আউশগ্রাম সংলগ্ন খড়ি নদী এলাকায় হানাও দিচ্ছেন। কিন্তু এখনও পর্যন্ত কাউকে গ্রেপ্তার করতে পারেননি। এদিকে, আউশগ্রামের পাশাপাশি এবার খড়ি নদী থেকে অবৈধভাবে বালি তুলে তা দিয়ে সরকারী প্রকল্পের কাজ করার অভিযোগ উঠল বর্ধমান ১নং ব্লকের ছোটবেলুন অঞ্চলের গয়লাকোঁধ এলাকায়। 

স্থানীয় গ্রামবাসীরা জানিয়েছেন, সম্প্রতি বাংলা আবাস যোজনা প্রকল্পে এই গ্রামে বেশ কিছু গৃহ নির্মাণ চলছে। একইসঙ্গে চলছে কয়েকটি গ্রামীণ রাস্তা ঢালাইয়ের কাজও। আর এই কাজেই সংশ্লিষ্ট ঠিকাদার দেদার অবৈধভাবে খড়ি নদী থেকে বালি তুলে তা দিয়ে সরকারী প্রকল্পের এই কাজ করছেন। এই ঘটনায় গোটা এলাকায় তীব্র চাঞ্চল্য ছড়ালেও কেউই রাজনৈতিক ভয়ে মুখ খুলতে সাহস পাচ্ছেন না। 

যদিও সংশ্লিষ্ট ঠিকাদার বিদ্যুত চক্রবর্তীকে এব্যাপারে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি সাফ জানিয়েছেন, তিনি খড়ি নদী থেকে বালি তুলছেন না। তাঁর বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ তোলা হচ্ছে। অপরদিকে, এব্যাপারে বর্ধমান সদর ১নং ব্লক তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি তথা পঞ্চায়েত সমিতির সদস্য কাকলি তা জানিয়েছেন, এর আগেও তাঁরা খড়ি নদী থেকে অবৈধ বালি তোলার খবর পেয়েই তা বন্ধ করে দিয়েছিলেন। ফের একই অভিযোগ ওঠায় স্থানীয় গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধানের কাছ থেকে এব্যাপারে জানতে চাওয়া হবে বলে কাকলীদেবী জানিয়েছেন। 

তিনি জানিয়েছেন, কোনোভাবেই খড়ি নদী থেকে বালি তোলা যায় না। তিনি জানিয়েছেন, এব্যাপারে সংশ্লিষ্ট ঠিকাদারকে যাতে কালো তালিকাভূক্ত করা হয় সে ব্যাপারে সুপারিশ করা হবে। অন্যদিকে, এ ব্যাপারে বর্ধমানের অতিরিক্ত জেলাশাসক (ভূমি) শশী কুমার চৌধুরী জানিয়েছেন, এরকম কোনো অভিযোগ তিনি পাননি। গোটা বিষয়টি খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
দামোদর, অজয়ের পর এবার খড়ি নদী থেকে দেদার অবৈধ বালি পাচারের অভিযোগ ঘিরে চাঞ্চল্য
  • Blogger Comments
  • Facebook Comments

0 comments:

Post a comment

Top