Headlines
Loading...
আসছেন মুখ্যমন্ত্রী, তার আগে বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রছাত্রীদের আন্দোলনে রাশ টানতে আসরে তিন মন্ত্রী

আসছেন মুখ্যমন্ত্রী, তার আগে বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রছাত্রীদের আন্দোলনে রাশ টানতে আসরে তিন মন্ত্রী


ফোকাস বেঙ্গল ডেস্ক,বর্ধমান: আগামী ৯ ডিসেম্বর বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ে বিজ্ঞান কংগ্রেসে যোগ দিতে আসছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়। আর তার আগে ছাত্রছাত্রীদের লাগাতার আন্দোলনে রাস টানতে এবার আসরে নামলেন খোদ এই বিশ্ববিদ্যালয়েরই প্রাক্তন তিন ছাত্র তথা রাজ্যের তিন মন্ত্রী। উল্লেখ্য, সাম্প্রতিক সময়ে বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে নানাবিধ ইস্যুতে সরব হয়েছে ছাত্রছাত্রীরা। রাতভর বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক নিমাই সাহাকে ঘেরাও করে বিক্ষোভ দেখিয়েছে ছাত্রছাত্রীরা। বিশ্ববিদ্যালয়ের হোষ্টেলের ঘর বহিরাগতদের তথা পাস আউট ছাত্রদের দখলে রেখে দেওয়া, রাগিং, হোষ্টেলের পরিবেশ ও পরিকাঠামোর নানাবিধ সমস্যা প্রভৃতি একাধিক ইস্যুর পাশাপাশি বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজাল্ট নিয়ে অসংগতি, ক্লাস চালু প্রভৃতি নিয়েও লাগাতার আন্দোলন চালিয়েছে ছাত্রছাত্রীরা। 

এরই পাশাপাশি সম্প্রতি বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ের গোলাপবাগ ক্যাম্পাসে উপাচার্যকে ঘেরাও করে বিক্ষোভ দেখানোর ঘটনায় রীতিমত অসুস্থ হয়ে পড়েন উপাচার্য। এর আগেও তিনি অসুস্থ হয়ে কলকাতার একটি বেসরকারী হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন। বারবার একই ঘটনা ঘটায় এবং বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রীদের আন্দোলনের ঝাঁঝ ক্রমশই বাড়তে থাকায় রীতিমত দুশ্চিন্তা দেখা দেয়।

বিশেষত সরাসরি না হলেও পিছন থেকে এই সমস্ত আন্দোলনেই রাজ্যের শাসকদলের একাধিক নেতার মদত থাকারও অভিযোগ উঠেছে। আর এরই মাঝে আগামী ৯ ডিসেম্বর বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ে বিজ্ঞান কংগ্রেসে যোগ দিতে আসছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়। ফলে এই ঘটনা নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর সামনে কোনো অপ্রীতিকর অবস্থার যাতে সৃষ্টি না হয় তার জন্য আসরে নামলেন রাজ্যের তিন মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ,শ্যামল সাঁতরা এবং আশীষ বন্দোপাধ‌্যায়। 

শনিবার বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ের কাদম্বিনী হলে ছাত্রছাত্রীদের নিয়ে এব্যাপারে আলোচনায় বসলেন এই তিন বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্র। এদিন তাঁরা সরাসরি ছাত্রছাত্রীদের জানিয়ে দিলেন – ছাত্রছাত্রীদের দাবীদাওয়া আছে, থাকবেও। কিন্তু সম্প্রতি যেভাবে বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্র আন্দোলনের নামে কার্যত শালীনতার সীমা অতিক্রম হয়েছে তা কখনই কাঙ্খিত নয়। এব্যাপারে ছাত্রছাত্রীদের সজাগ থাকতে হবে। যাতে এরপর এই ধরণের আন্দোলন না হয় সে ব্যাপারেও ছাত্রছাত্রীদের কাছে তাঁরা বার্তা দিয়ে যান।
(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});