Headlines
Loading...
দেশের মধ্যে প্রথম বর্ধমানে এই বিরল অস্ত্রোপচারে সাফল্য চিকিৎসকদের

দেশের মধ্যে প্রথম বর্ধমানে এই বিরল অস্ত্রোপচারে সাফল্য চিকিৎসকদের


ফোকাস বেঙ্গল ডেস্ক,বর্ধমান: বর্ধমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সার্জারি বিভাগে জটিল অস্ত্রোপচার করে সাড়া ফেলে দিলেন চিকিৎসকরা। বর্ধমান মেডিকেল কলেজের সার্জারি বিভাগের চিকিৎসক মধুসূদন চ্যাটার্জ্জী জানিয়েছেন, বর্ধমানের নেড়োদিঘী এলাকার বাসিন্দা রফিকুল ইসলাম (২৩) দীর্ঘ প্রায় ১৫ বছর ধরে ভুগছিলেন। তাঁর মূত্রদ্বার দিয়ে খাবারের বিভিন্ন টুকরো বেড়িয়ে আসত। যা নিয়ে এলাকায় নানাভাবে তাঁকে ব্যঙ্গ করা হত। কেউ কেউ তাকে মানষিক রোগীও বলত। 

সম্প্রতি সে বর্ধমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সার্জারি বিভাগের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক ডা. নরেন মুখার্জ্জীর কাছে আসেন। তিনি সফিকুলকে প্রসাব করার জন্য বলেন। তাঁর সামনেই সে প্রস্রাব করলে দেখা যায় তার প্রসাবের মধ্যে দিয়ে ভাত ও অন্যান্য খাবারের টুকরো বেড়িয়ে আসছে। এরপর তাকে বর্ধমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তির পরামর্শ দেন। প্রায় সপ্তাহ দুই আগে সফিকুল বর্ধমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি হয়। এরপর শুরু হয় তার পরীক্ষা নিরীক্ষা। 

ডা. চ্যাটার্জ্জী জানিয়েছেন, সফিকুলের বিভিন্ন পরীক্ষার মধ্যে তার সিটি ইফরোগ্রাফি করা হয়। সেখানেই ধরা পড়ে তার ক্ষুদ্রান্তের মধ্যে রয়েছে একটি ফুটো। একইভাবে মূত্রথলিতেও রয়েছে ফুটো। খাবারের টুকরো ওই পথেই তার প্রস্রাবের মধ্যে দিয়ে বেড়িয়ে আসছিল। ডা. চ্যাটার্জ্জী জানিয়েছেন, সফিকুলের পরিবারসূত্রে জানা গেছে, সফিকুলের যখন প্রায় ৮ বছর বয়স তখন তার মূত্রদ্বার দিয়ে প্রায় ৬ ইঞ্চি মাপের একটি কৃমি (চলতি কথায় কেঁচো) বেড়িয়ে আসে। তারপর থেকেই এই ঘটনা ঘটে চলেছে। তিনি জানিয়েছেন, এরপরই তাঁরা অপারেশনের সিদ্ধান্ত নেন। মঙ্গলবার তার ইউরেটারী ডুওড্রেনাল ফিসচুলার অপারেশন হয়। অপারেশনে ছিলেন ডা. নরেন মুখার্জ্জীর নেতৃত্বে ডা. মধুসূদন চ্যাটার্জ্জী, জ্যোর্তিময় ভট্টাচার্য সহ মোট ৮জনের টিম। 

তিনি জানিয়েছেন, অস্ত্রোপচারের পর সফিকুল এখন সুস্থ। সে বিপদমুক্ত বলেই জানিয়েছেন। ডা. মধুসূদন চ্যাটার্জ্জী জানিয়েছেন, ভারতবর্ষে এই ধরণের অপারেশন এই প্রথম। গোটা পৃথিবীতে এর আগে এই ধরণের অপারেশন হয়েছে ১১টি। স্বাভাবিকভাবেই বর্ধমান মেডিকল কলেজ হাসপাতালে এই অপারেশন সাফল্যের আরও একটি পালক যুক্ত করল।
(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});