Headlines
Loading...
গলসিতে পারিবারিক বিবাদের জেরে ছেলে সহ তার পরিবারকে জীবন্ত পুড়িয়ে মারার চেষ্টা বাবার

গলসিতে পারিবারিক বিবাদের জেরে ছেলে সহ তার পরিবারকে জীবন্ত পুড়িয়ে মারার চেষ্টা বাবার

ফোকাস বেঙ্গল ডেস্ক,বর্ধমান: পারিবারিক বিবাদের জেরে নিজের ছেলে, বৌমা ও দুই নাতনিকে জীবন্ত পুড়িয়ে মারার চেষ্টা করল বাবা। পৈশাচিক এই ঘটনাটি ঘটেছে মঙ্গলবার গভীর রাতে গলসি 2 নং ব্লকের খানো গ্রামের ডাঙ্গাপাড়া এলাকায়। আশঙ্কাজনক অবস্থায় দগ্ধ চারজনকেই ভর্তি করা হয়েছে বর্ধমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। আর এই ঘটনায় তীব্র উত্তেজনা ছড়িয়েছে এলাকায়। 

ঘটনার পরই অভিযুক্ত বাবা শেখ ইউসুফ গা ঢাকা দেওয়ার চেষ্টা করলে গলসি থানার পুলিশ গুসকরা থেকে তাকে গ্রেফতার করে। পাশাপাশি এই ঘটনায় যুক্ত সন্দেহে বর্ধমান হাসপাতাল থেকে আরেক ভাই শেখ ইকরাম কে গ্রেফতার করে বর্ধমান থানার পুলিশ।
উল্লেখ্য,রেলের প্রাক্তন কর্মী বাবা শেখ ইউসুফের সঙ্গে ছেলের জমি বিবাদকে কেন্দ্র করে দীর্ঘদিন ধরে অশান্তি চলছিল। গতকাল রাতেও বাবা ও ছেলের মধ্যে তুমুল ঝগড়া হয়। 

পরিবার সূত্রে জানা গেছে, ইকবালকে বাড়ি করার জন্য 4 লক্ষ টাকা দেওয়ার কথা ছিল বাবা ইউসুফের। ইকবাল গতকালই কলকাতা থেকে বাড়ি ফেরে। আর তারপরই পাওনা টাকার জন্য চাপ দিতে থাকে বাবাকে। অভিযোগ, এরপরই ছেলে সহ তার পরিবারকে মেরে ফেলার যড়যন্ত্র করে ইউসুফ। বাজার থেকে নতুন গ্যাস সিলিন্ডার কিনে আনেন সে। রাতে ইকবাল বউ মেয়েদের নিয়ে ঘরে শুয়ে পড়লে গভীর রাতে বাইরে থেকে দরজা বন্ধ করে গ্যাসের পাইপ ঢুকিয়ে আগুন ধরিয়ে দেয় ইউসুফ। 

ভেতর থেকে বিকট আওয়াজ শুনতে পেয়ে ইকবালের বড়দা ও গ্রামবাসিরা বেড়িয়ে এসে তালা ভেঙে অর্ধ দগ্ধ সকলকে উদ্ধার করে বর্ধমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন। বর্তমানে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে ইকবাল,তাঁর স্ত্রী তুহিনা বেগম সহ দুই নাবালিকা মেয়ে সুহানা ও বিলকিস। হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, একটি বাচ্চা ছাড়া বাকি তিনজনের অবস্থা আশংকাজনক, প্রত্যেকের চিকিৎসা চলছে। এই ঘটনায় গোটা গ্রাম ও পরিবারের সকলে ঈশ্বরের কাছে প্রার্থনা করছে যাতে মৃত্যুর হাত থেকে তাঁরা ফিরে আসে। মর্মান্তিক এই ঘটিনায় চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে পূর্ব বর্ধমান জেলা জুড়ে।
(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});