728x90 AdSpace

Latest News

Thursday, 14 November 2019

দু মাসের ব্যবধানে ফের হুমকি ফোন পূর্ব বর্ধমান জেলা পরিষদের সহকারী সভাধিপতিকে,আলোড়ন


ফোকাস বেঙ্গল ডেস্ক,বর্ধমান: ঠিক দু মাসের ব্যবধানে ফের ফোন করে হুমকি দেওয়ার ঘটনা ঘটল পূর্ব বর্ধমান জেলাপরিষদের সহকারী সভাধিপতি দেবু টুডুর সঙ্গে। বিষয়টি নিয়ে সহকারী সভাধিপতি পুলিশের কাছে অভিযোগ জানিয়েছেন। পূর্ব বর্ধমান জেলা পরিষদের সহকারী সভাধিপতি তথা পূর্ব বর্ধমান জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের কো-অর্ডিনেটর দেবু টুডু অভিযোগ করেছেন, বৃহস্পতিবার তিনি জেলাপরিষদ ভবনে চেম্বারে কাজ করছিলেন। সেই সময় অর্থাৎ 12 টা 12 মিনিটে তাঁর ফোনে একটি অপরিচিত নং থেকে ফোন আসে। দেবু টুডু অভিযোগ করেছেন, ফোন করে সেই ব্যক্তি একটি ধর্মীয় স্লোগান দিতে বলেন তাঁকে। পাশাপাশি অশ্লীল ভাষায় কথা বলে প্রাণনাশের হুমকি দেয়। এরপর ফের 12 টা 36 এবং 12 টা 43 মিনিটে আরো দুটি অপরিচিত নম্বর থেকে তাকে ফোন করে একই ভাবে খারাপ ভাষায় কথা বলে ও প্রাণনাশের হুমকি দেওয়া হয়।

দেবু টুডু দাবী করেছেন, তাঁর মোবাইলে ট্রুকলার অ্যাপস লোড করা আছে। সেই অ্যাপের তথ্য অনুযায়ী অপরিচিত তিনটে মোবাইলের নম্বরের মালিক হিসাবে নাম দেখাচ্ছে দেবাশীষ সরকার, কৃষ্ণেন্দু রায় এবং রাজু দা বিজেপি। দেবু টুডু জানিয়েছেন, এর আগেও দুদফায় তাকে একাধিকবার ফোন করে হুমকি দেওয়া হয়েছে। তিনি এই হুমকি ফোনে ভয় পান না। তবে কোন রাজনৈতিক দল এর পেছেনে রয়েছে সেই বিষয়ে এতদিন তিনি নিশ্চিত হতে পারছিলেন না, আজকের ঘটনার পর এর পিছনে যে বিজেপি রয়েছে সেই বিষয়ে তিনি নিশ্চিত হয়েছেন বলে এদিন দেবু টুডু দাবী করেছেন। তিনি জানিয়েছেন, মোবাইল নম্বর ধরে প্রাথমিকভাবে তাঁর সংগ্রহ করা তথ্য অনুযায়ী এদিন ফোন আসা তিনিটি নম্বরই বিজেপির সঙ্গে যুক্ত ব্যক্তিদের। বিষয়টি তিনি রাজ্যের মন্ত্রী তথা জেলা সভাপতি স্বপন দেবনাথ এবং পুলিশসুপারকে জানিয়েছেন। পুলিশসুপার এবং জেলা সাইবার সেলে লিখিতভাবে অভিযোগও করেছেন তিনি।

উল্লেখ্য, এর আগে এবছরেরই ১৫-১৬ সেপ্টেম্বর রাতে ১৫ মিনিট ধরে তাঁর ফোনে লাগাতার ফোন করে হুমকি দেওয়া হয়েছিল। এরপর তিনি গোটা বিষয়টি জানান জেলা পুলিশের সাইবার সেলকে। সঙ্গে সঙ্গে সাইবার পুলিশ এসে তাঁর কাছ থেকে বিস্তারিত তথ্য সংগ্রহ করে নিয়ে যান। এর আগে এবছরেরই ১৮ আগষ্ট রাত্রে তাঁকে ২৫ বার ফোন করা হয় বিভিন্ন ফোন নাম্বার থেকে। প্রতিটি ফোনেই তাঁকে হুমকি দেওয়া হয় মেরে ফেলার। তিনি জেলা পুলিশের পাশাপাশি গোটা বিষয়টি জানান দলীয় উচ্চ নেতৃত্বকেও। উল্লেখ্য, ১৮ অগষ্টের ঘটনায় পূর্ব বর্ধমান জেলা সাইবার পুলিশ তদন্তে নেমে নদীয়ার পলাশিপাড়া থানার পাঁচদাড়া গ্রাম থেকে সঞ্জীব ঘোষ নামে এক যুবককে গ্রেপ্তারও করে। প্রাথমিকভাবে জানা যায়, ওই যুবকের ফোন নাম্বার ব্যবহার করে ওই ফোনগুলি করা হয়েছিল। 

কী কারণে দফায় দফায় এই খুনের হুমকি তা নিয়ে ক্রমশই রহস্য দানা বাঁধতে শুরু করেছে। খোদ জেলা পরিষদের অন্দরে এই ঘটনাকে ঘিরে রীতিমত চর্চাও শুরু হয়েছে। একইসঙ্গে অজানা আশংকায় ভুগতে শুরু করেছেন অনেকেই। যদিও বিষয়টি নিয়ে বর্ধমান জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের কো-অর্ডিনেটর দেবু টুডু জানিয়েছেন, তিনি এইধরণের হুমকি ফোনে ভয় পাননা। আইনি এবং রাজনৈতিক ভাবে এর মোকাবিলা করা হবে। এটা দেউলিয়া হয়ে যাওয়া রাজনীতির বহি:প্রকাশ। এই ধরণের কর্মকাণ্ড কোনও রাজনৈতিক দলের এজেন্ডা হতেই পারে, কিন্তু তাতে তাদের কোনও লাভ হবে না।

বিষয়টি নিয়ে বিজেপি কিষাণ মোর্চার রাজ্যের সদস্য তথা বিজেপির বর্ধমান দক্ষিণ বিধানসভা ক্ষেত্রের আহ্বায়ক দেবাশীষ সরকার জানিয়েছেন, দেবু টুডু গতকাল কুড়মুনে দলীয় সভা থেকে বক্তব্য রেখে বলেছেন, জয়শ্রীরাম বললে তাকে ঘাড় ধাক্কা দিয়ে এখান থেকে তাড়িয়ে দেবেন। এই বক্তব্য শোনার পর অনেকেই দেবু টুডুকে ফোন করে জয়শ্রীরাম বলছেন। আমিও বলেছি। দেখি উনি কীভাবে ঘাড় ধাক্কা দিয়ে আমাদের এখান থেকে তাড়িয়ে দেন। তবে ফোনে কোনও হুমকি দেওয়া হয়নি বলে দাবী করেছেন দেবাশীষ সরকার।
দু মাসের ব্যবধানে ফের হুমকি ফোন পূর্ব বর্ধমান জেলা পরিষদের সহকারী সভাধিপতিকে,আলোড়ন
  • Blogger Comments
  • Facebook Comments

0 comments:

Post a Comment

Top