Headlines
Loading...
বর্ধমানের জামালপুরে আইনজীবী খুনের পুলিশি তদন্তে সন্তোষ প্রকাশ করে গেলেন রাজ্য বার কাউন্সিলের প্রতিনিধিরা

বর্ধমানের জামালপুরে আইনজীবী খুনের পুলিশি তদন্তে সন্তোষ প্রকাশ করে গেলেন রাজ্য বার কাউন্সিলের প্রতিনিধিরা


ফোকাস বেঙ্গল ডেস্ক,বর্ধমান: বর্ধমান আদালতের আইনজীবী মিতালী ঘোষের খুনের ঘটনায় বৃহস্পতিবার রাজ্য বার কাউন্সিলের ৯ সদস্য সহ বর্ধমান আদালতের বার অ্যাসোসিয়েশনের সদস্যরা বর্ধমান জেলা পুলিশ সুপারের সঙ্গে দেখা করে সন্তোষ প্রকাশ করে গেলেন। এদিন রাজ্য বার কাউন্সিলের ভাইস চেয়ারম্যান সিদ্ধার্থ মুখোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে ৯ সদস্যের একটি প্রতিনিধিদল বর্ধমানে আসেন। বর্ধমান বার এ্যাসোসিয়েশনে প্রতিবাদ সভার পর মৌন মিছিল করে তাঁরা হাজির হন জেলা পুলিশ সুপারের অফিসে। 

জেলা পুলিশ সুপার ভাস্কর মুখোপাধ্যায়ের সঙ্গে দেখা করার পর সিদ্ধার্থ মুখোপাধ্যায়, রাজ্য বার কাউন্সিলের সদস্য প্রসূন কুমার দত্ত এবং বর্ধমান বার এ্যাসোসিয়েশনের সম্পাদক সদন তা সাংবাদিকদের জানান, এদিন তদন্তের গতিপ্রকৃতি নিয়ে জেলা পুলিশ সুপারের সঙ্গে বিস্তারিত আলোচনা হয়েছে। পুলিশ সুপার তদন্তের বিষয়ে যা বলেছেন তাতে তাঁরা সন্তুষ্ট। পুলিশ সুপার তাঁদের জানিয়েছেন, খুব শীঘ্রই অপরাধী ধরা পড়বে। উল্লেখ্য, এদিনই এসইউসিআই-এর সেন্টার ফর প্রোটেকশন অফ ডেমোক্রেটিক রাইটস এণ্ড সেকুলারিজম-এর পক্ষ থেকে পূর্ব বর্ধমান জেলাশাসকের কাছে স্মারকলিপি দিয়ে আইনজীবী খুনের ঘটনায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়। একইসঙ্গে দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তিরও দাবী জানানো হয়। 

উল্লেখ্য, গত ২৭ অক্টোবর সকালে বাড়ির পরিচারিকা কাজ করতে এসে জামালপুর থানার আঝাপুরের বাসিন্দা আইনজীবী মিতালী ঘোষের বাড়ির দরজা বন্ধ দেখতে পান। অনেক ডাকাডাকি করেও কোনো সাড়া না পাওয়ায় প্রতিবেশীদের খবর দেন। প্রতিবেশীরা মই বেয়ে পাঁচিল টপকে বাড়ির উঠানে রক্তাক্ত মৃত অবস্থায় মিতালীদেবীকে পড়ে থাকতে দেখেন। পরে পুলিশ গোটা ঘটনার তদন্ত শুরু করে। তদন্তের প্রয়োজনে কলকাতা থেকে সিআইডির ফ্রিঙ্গার প্রিণ্ট বিশেষজ্ঞ এবং ফরেনসিক বিশেষজ্ঞরা এসে নমুনা সংগ্রহ করে নিয়ে যান। ঘটনার পরই মিতালী দেবীর ঘরের জিনিসপত্র লণ্ডভণ্ড অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখে অনুমান করা হয় তাঁর গহনাও লুঠ হয়েছে। কিন্তু বুধবার পুলিশ মিতালীদেবীর ঘর থেকেই যথাযথ অবস্থায় গহনার বাক্স উদ্ধার করেন। গহনা লুঠ না হওয়ায় তদন্তের মুখ পরিবর্তন হয়। 

এদিকে, খুনের পর প্রায় ৫দিন কেটে গেলেও দুষ্কৃতিদের কোনো হদিশ পায়নি পুলিশ। তারই মাঝে এই খুনের ঘটনায় বৃহস্পতিবার গোটা রাজ্য সহ আন্দামান, নিকোবর দ্বীপপুঞ্জেও কর্মবিরতি পালন করেন আইনজীবীরা। এদিন বার কাউন্সিলের প্রতিনিধিরা জানিয়েছেন, যেভাবে তদন্ত এগোচ্ছে বলে পুলিশ সুপার জানিয়েছেন, তাতে তাঁরা সন্তুষ্ট। এদিকে, পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, ময়না তদন্তের রিপোর্টে মিতালীদেবীকে মাথায় ভারী বস্তু দিয়ে আঘাত করার জন্যই তাঁর মৃত্যু হয়েছে বলে জানা গেছে।
(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});