Headlines
Loading...
ত্রিকোণ প্রেমের বলি এক প্রেমিক,গ্রেফতার তিন। চাঞ্চল্য আরামবাগে

ত্রিকোণ প্রেমের বলি এক প্রেমিক,গ্রেফতার তিন। চাঞ্চল্য আরামবাগে



ফোকাস বেঙ্গল ডেস্ক,আরামবাগ: এক গৃহবধূর সঙ্গে দুই পুরুষের অবৈধ সম্পর্কের টানাপোড়েনে নৃশংস ভাবে খুন হতে হল আরেক প্রেমিককে। চাঞ্চল্যকর এই ঘটনাটি ঘটেছিলো 4 অক্টোবর আরামবাগের পারুল হাই স্কুল মাঠ সংলগ্ন বৃন্দাবনপুর এলাকায়। ওইদিন বৃন্দাবনপুর এলাকার বাঁশবাগানের ঝোপ থেকে মথুরামোহন পাত্র নামে এক ব্যক্তির গলায় গামছার ফাঁস দেওয়া মৃতদেহ উদ্ধার করে আরামবাগ থানার পুলিশ। মথুরার পরিবার আরামবাগ থানায় তপন রানা ও শ্যাম কিস্কু নামে দুই ব্যক্তির বিরুদ্ধে মথুরার খুনে অভিযুক্ত থাকার কথা জানিয়ে অভিযোগ দায়ের করেন। পুলিশ তদন্তে নেমে ওই দুজনকে গ্রেফতার করে। তারপর তাদের আদালতে তোলা হয়। আদালত দুই ব্যক্তির পুলিশ হেফাজতের নির্দেশ দেন। পরে এদের জেরা করে চতুষ্কোণ প্রেমের তথ্য পায় পুলিশ। 

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, স্থানীয় এক গৃহবধূর সাথে অবৈধ সম্পর্কে জড়িয়ে পরে মথুরা। তারা সকলেই একটি কারখানায় শ্রমিকের কাজ করতো। আরো জানা গিয়েছে, সম্পর্ক গাঢ় হয় প্রায় ৭ মাস আগে। তারপরই ঘনিষ্ঠতা বাড়ে দুজনের মধ্যে। তদন্তের স্বার্থে গৃহবধূকে সোমবার আটক করে আরামবাগ থানার পুলিশ। 

উল্লেখ্য,এরপরই ঘটনার মোড় নিতে শুরু করে অন্যদিকে। গৃহবধূকে জেরা করতে গিয়ে উঠে আসে আরও এক প্রেমিকের কাহিনী। জানা যায়, ওই গৃহবধূ সাথে সুখলাল মূর্মু ওরফে সাজু নামে স্থানীয় এক ব্যক্তির প্রায় সাত বছর ধরে অবৈধ সম্পর্ক ছিল । এরপর সুখলাল জানতে পারে ওই গৃহবধূর সাথে মথুরার ঘনিষ্ঠতা তৈরি হয়েছে। তার পরেই তাদের মধ্যে অশান্তি শুরু হয়। বারবার ওই গৃহবধূকে সতর্ক করলেও তিনি তা শোনেননি। 3 তারিখ দুপুর বেলায় মথুরার সঙ্গে ওই গৃহবধূকে গল্প করতে দেখে সুখলাল। হাতেনাতে ধরে ফেলে তাদের। ওই বধূ কে মারধর করে সেখান থেকে তাড়িয়ে দেয় সুখলাল। তারপর মথুরা কে তুলে নিয়ে যায় একটি গোপন স্থানে। সেখানে তার গলায় গামছা দিয়ে ফাঁস লাগিয়ে তাকে মেরে ফেলে দেয় বাঁশবাগানের ঝোপের মধ্যে। বুধবার সুখলাল মুর্মু ওরফে সাজু কে আরামবাগ মহকুমা আদালতে তোলা হবে।
(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});