Headlines
Loading...
বর্ধমানে সংকীর্ণ সাম্প্রদায়িকতার উর্দ্ধে উঠে উৎসব পালনের বার্তা পুলিশ সুপারের

বর্ধমানে সংকীর্ণ সাম্প্রদায়িকতার উর্দ্ধে উঠে উৎসব পালনের বার্তা পুলিশ সুপারের


ফোকাস বেঙ্গল ডেস্ক,বর্ধমান: দুর্গাপুজোর দিনগুলোকে সর্বাঙ্গীন সুন্দর ও নিরূপদ্রোব রাখতে ইতিমধ্যেই পূর্ব বর্ধমান জেলা প্রশাসন জেলার দুর্গাপুজো কমিটিগুলিকে নিয়ে বৈঠক করেছে। এবার শহরের সমস্ত পুজো উদ্যোক্তাদের সমন্বয় কমিটির সঙ্গে সোমবার বর্ধমানের সংস্কৃতি লোকমঞ্চে বৈঠক সারলেন জেলা ও পুলিশের অধিকারিকগণ। উপস্থিত ছিলেন বর্ধমান দক্ষিণের বিধায়ক রবিরঞ্জন চট্টোপাধ্যায়, জেলাশাসক বিজয় ভারতী, পুলিশ সুপার ভাস্কর মুখার্জি, জেলা পরিষদের সহকারী সভাধিপতি দেবু টুডু, সমন্বয় কমিটির কর্তা তথা প্রাক্তন কাউন্সিলর খোকন দাস সহ অন্যান্য প্রাক্তন কাউন্সিলর এবং প্রত্যেক পুজো কমিটির সভাপতি, সম্পাদকগণ। 

দেবু টুডু এদিন বক্তব্য রাখতে গিয়ে বলেন, সমস্ত রকম অনুমতি থেকে সরকারি অনুদান কিভাবে, কত সহজে পুজো উদ্যোক্তাদের দেওয়া যায় প্রশাসন সেই বিষয়টি দেখছে। তিনি বলেন, দেশ জুড়ে চরম আর্থিক মন্দা চলছে, তারই মধ্যে রাজ্য সরকার চেষ্টা করছে বাংলা ও বাঙালির প্রাণের সারদোৎসবে যাতে কোনো ভাটা না পড়ে। আর তাই আজ আমরা ধর্ম, বর্ণ নির্বিশেষে এক ছাতার তলায় মিলিত হয়েছি। এখানে কোনো ভেদাভেদ নেই। উৎসব হয়ে উঠুক সবার। আমাদের সকলের একটাই লক্ষ্য থাকবে কিভাবে এবছরও বিগত বছরগুলোর মতো সুন্দর ভাবে এই উৎসব উদযাপন করতে পারি।

পুলিশ সুপার ভাস্কর মুখার্জি বলেন, দুর্গাপুজো বিশ্বজুড়ে সমস্ত বাঙালির প্রাণের উৎসব। তাই সমস্ত সংকীর্ণ সাম্প্রদায়িকতার উর্দ্ধে উঠে বাঙালির শ্রেষ্ঠ উৎসব কে আরো সুন্দর ও প্রাণোচ্ছল ভাবে পালন করাই হবে আমাদের উদ্দেশ্য। জেলা পুলিশ উৎসবের দিনগুলোতে 24 ঘন্টা সর্বতভাবে সাধারণ মানুষের পাশে থাকবে।

শহর দুর্গাপুজো সমন্বয় কমিটির পক্ষে খোকন দাস বলেন, বড় পুজোগুলোর পাশাপাশি ছোট পুজো কমিটিগুলোকেও যাতে আর্থিক সাহায্য করা যায় সে বিষয়ে চিন্তা ভাবনা করা হচ্ছে। জাতীয় সংগীত পরিবেশনের মাধ্যমে এদিনের সভার সমাপ্তি ঘোষণা করেন খোকন দাস।
(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});