Headlines
Loading...
নিষিদ্ধের আবেদন সত্ত্বেও শোকের মোহরমে ব্যাপক হারে বাজল ডিজে, চললো খোলা তলোয়ার নিয়ে জুলুস

নিষিদ্ধের আবেদন সত্ত্বেও শোকের মোহরমে ব্যাপক হারে বাজল ডিজে, চললো খোলা তলোয়ার নিয়ে জুলুস


ফোকাস বেঙ্গল ডেস্ক,বর্ধমান: প্রতিবছেরর মত এবছরও মহরম উপলক্ষ্যে বাদ পড়ল না ব্লেড মাতন, জিনজি মাতন ও আগুনের উপর হাঁটা। এবারেও মহরমের শোকযাত্রায় বাজল ব্যাপক হারে ডিজে। যা নিয়ে প্রশাসনের দিকেই অভিযোগের আঙুল তুললেন বর্ধমান শহরের কেন্দ্রীয় মহরম কমিটি। কমিটির সম্পাদক স্বপন মুখার্জ্জী জানিয়েছেন, তাঁরা জেলা প্রশাসনের সর্বত্র লিখিতভাবে মহরমে ডিজে নিষিদ্ধ করার আবেদন জানিয়েছিলেন। এমনকি প্রতিটি মহরম কমিটিকেও তাঁরা এব্যাপারে ডিজে ব্যবহার বন্ধ করার জন্য জানিয়েছিলেন। কিছু মহরম কমিটি অনেকে তাঁদের আবেদনে সাড়া দিয়ে ডিজে ব্যবহার না করলেও অনেকেই ব্যবহার করেছেন। তাঁদের তিনি ধিক্কার জানিয়েছেন। 

একইসঙ্গে স্বপনবাবু এদিন প্রশাসনের দিকেই অভিযোগের আঙুল তুলে জানিয়েছেন, বারবার লিখিতভাবে আবেদন জানানো হলেও পুলিশ ডিজে বন্ধের ব্যাপারে কোনো সহায়তাই করেনি। যদিও এব্যাপারে বর্ধমানের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার প্রিয়ব্রত রায় জানিয়েছেন, তাঁরা মহরম কমিটি গুলিকে ডিজে ব্যবহার না করার জন্য আবেদন জানিয়েছিলেন। কিন্তু তারপরেও অনেকে তা ব্যবহার করেছেন বলে শুনেছেন। এব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার চেষ্টা করছেন তাঁরা। এদিকে, মহরমের শোকযাত্রায় ব্যাপক হারে তলোয়ারের ব্যবহার নিয়েও চর্চা শুরু হয়েছে শহর জুড়ে। অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জানিয়েছেন, চলে আসা রীতি বন্ধ করার জন্য প্রশাসনিক কোনো নির্দেশ তাঁরা পাননি। তবে নতুন করে কোনো মহরম কমিটিকে তাঁরা অনুমোদন দেননি।

 
এদিকে, মঙ্গলবার বর্ধমান শহরের শতবর্ষের ঐতিহ্যবাহী কালাপাহাড়ির পীরস্থানে চাদর চড়ালেন রাজ্যের মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ। এদিন তাঁর সঙ্গে ছিলেন বর্ধমান জেলা পরিষদের মেন্টর উজ্জ্বল প্রামাণিক সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ। স্বপনবাবু এদিন বলেন, কলেজ জীবনে তিনি প্রতিবছর আসতেন কালাপাহাড়ির এই ঢালে। বর্ধমানে থাকলে তিনি আসার চেষ্টা করেন আসার। জানিয়েছেন, সকলের কল্যাণ চেয়েছেন তিনি এদিন। এছাড়াও এদিন বর্ধমানের মেহেদিবাগান এলাকায় পবিত্র মহরমের মিছিলে সামিল হলেন বর্ধমান পুরসভার প্রাক্তন কাউন্সিলার খোকন দাস, আইএনটিটিইউসি নেতা ইফতিকার আহমেদ সহ এলাকার বহু মানুষ।


 
(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});