Headlines
Loading...
আউশগ্রামে ঝুলনের থিম কাটমানি, অনুব্রত মণ্ডল সেজে আলোড়ন ফেললো গ্রামেরই এক খুদে ছাত্র

আউশগ্রামে ঝুলনের থিম কাটমানি, অনুব্রত মণ্ডল সেজে আলোড়ন ফেললো গ্রামেরই এক খুদে ছাত্র


ফোকাস বেঙ্গল ডেস্ক,বর্ধমানঃ আউশগ্রামের বেলাড়ি গ্রামে ঝুলন উৎসবের থিমে কাটমানি ইস্যুকে ঘিরে ব্যাপক শোরগোল শুরু হয়ে গেল। খোদ বীরভূম জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি তথা আউশগ্রামের পর্যবেক্ষক অনুব্রত মণ্ডলের কাছ থেকে কাটমানির টাকা ফেরত চেয়ে থিম বানানোয় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে গোটা আউশগ্রাম অঞ্চল জুড়ে। যদিও গোটা বিষয়টিকে নিয়ে রীতিমত তাড়িয়ে তাড়িয়ে উপভোগ করেছেন খোদ অনুব্রত মণ্ডল।

জানা গেছে, প্রায় ৩০ বছর ধরে আউশগ্রামের বেলাড়ি গ্রামে ঝুলন উৎসব চলে আসছে। প্রতিবছর বেলাড়ি গ্রামীণ পাঠাগার ও বেলাড়ি সূর্য সংঘ এই দুটি ক্লাবের পক্ষ থেকে গ্রামের ফুটবল মাঠে ঝুলন উৎসবের আয়োজন করা হয়। প্রতিদিনই একাধিক নতুন থিমের আয়োজন করা হয়। গ্রামের কচিকাঁচা থেকে প্রবীণরাও ঝুলনে বিভিন্ন চরিত্রে সাজেন। আউশগ্রাম ছাড়াও আশপাশের এলাকা থেকে দর্শনার্থীরা বেলাড়ি গ্রামের ঝুলন দেখতে ভিড় জমান। রাতভর দর্শনার্থীদের ভিড় থাকে। রবিবার রাতে সূর্য সংঘের মণ্ডপে দেখা যায় অন্যান্য কয়েকটি থিমের পাশাপাশি কাটমানি ইস্যুকে নিয়ে থিম। আর এই থিমটি রবিবার রাতে নজড় কাড়ে সবার। থিমে তুলে ধরা হয় অনুব্রত মণ্ডল বৈঠক করছেন সাধারণ মানুষকে নিয়ে। নেতাকে পাহাড়া দিচ্ছেন সশস্ত্র নিরাপত্তারক্ষী। কয়েকজন গরীব মানুষ অনুব্রতর কাছে কাটমানি ফেরত চাইছেন। একজনের হাতে পোষ্টারে লেখা, সততার প্রতীক ভাই, কাটমানি ফেরত চাই। আমাদের টাকা ফেরত চাই। কেউ হাতে পোষ্টার নিয়ে বলছেন, আমাদের টাকা ফেরত চাই।

ঝুলনের এই দৃশ্যে অভিনয় করেছেন বেলাড়ি গ্রামেরই কয়েকজন কচিকাঁচা। বেলাড়ি উচ্চবিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির ছাত্র রনি পাল অনুব্রত মণ্ডলের চরিত্রে অভিনয় করে রীতিমত সাড়া ফেলে দিয়েছে। কাটমানি থিমের আয়োজক সুর্য সংঘের কর্মকর্তা সঞ্জয় চট্টোপাধ্যায় জানিয়েছেন, নেহাতই মানুষকে আনন্দ দেওয়ার জন্যই এই থিম। এর সঙ্গে রাজনীতির কোনো সম্পর্ক নেই। যেহেতু এবছর কাটমানি সাম্প্রতিক ইস্যু তাই এই এটাকে থিম হিসাবে বেছে নেওয়া হয়েছে।

এদিন উদ্যোক্তারা জানিয়েছেন অনুব্রতবাবুকেও ঝুলন উৎসবে আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন। কিন্তু আসতে পারেননি। শনিবার উদ্বোধন করেন আউশগ্রামের বিধায়ক অনুব্রত ঘনিষ্ঠ অভেদানন্দ থান্দার। ঝুলনের ওই থিমের কথা জানতে পেরে অনুব্রত মণ্ডল জানিয়েছেন,বেশ মজার থিম করেছে ওরা। তিনি জানিয়েছেন, দলীয় কর্মীদের কাছে আগেও তিনি বলেছেন কোনও গরিব মানুষের কাছে কাটমানি নেওয়া যাবে না। পাশাপাশি সাধারন মানুষেরও সতর্ক হওয়া প্রয়োজন যাতে কেউ কাটামানি না দেন।

0 Comments: