Headlines
Loading...
 পূর্ব বর্ধমান জেলা জুড়ে একগুচ্ছ প্রকল্প বাস্তবায়িত করার নির্দেশ জেলাশাসকের

পূর্ব বর্ধমান জেলা জুড়ে একগুচ্ছ প্রকল্প বাস্তবায়িত করার নির্দেশ জেলাশাসকের


ফোকাস বেঙ্গল ডেস্ক,বর্ধমানঃ গুচ্ছ প্রকল্প বাস্তবায়িত করার লক্ষ্য নিয়ে জেলা জুড়ে নির্দেশ দিলেন পূর্ব বর্ধমানের জেলাশাসক বিজয় ভারতী। একইসঙ্গে আসন্ন দুর্গাপুজোর আগেই বর্ধমান শহরের রেলওয়ে ওভারব্রীজকে চালু করার লক্ষ্যে এদিন আরও একধাপ এগিয়ে গেল জেলা প্রশাসন। আসন্ন দুর্গাপুজোর আগেই বর্ধমান রেলওয়ে ওভারব্রীজ চালু হতে চলেছে বলে ফের জানালেন পূর্ব বর্ধমানের জেলাশাসক বিজয় ভারতী।

বৃহস্পতিবার রেলওয়ে ওভারব্রীজের নির্মাণকারী সংস্থার প্রতিনিধি, পূর্ত দপ্তর, ভূমি দপ্তর প্রভৃতি দপ্তরগুলিকে নিয়ে বৈঠকে বসেন জেলাশাসক। পরে তিনি জানিয়েছেন, ওভারব্রীজের কাজ শেষ পর্যায়ে। এখন ব্রীজের আশপাশ, ব্রীজের নিচে কিভাবে পরিকল্পিতভাবে ব্যবহার করা যায় তা নিয়েই এদিন বৈঠক হয়েছে। টোটোর স্ট্যাণ্ড, সাইকেল স্ট্যাণ্ড, মোটরগাড়ির স্ট্যাণ্ড ছাড়াও, কাঁচা সবজী বাজার, ফুলের বাজার, কর্মতীর্থ প্রভৃতি বিভিন্নভাবে কিভাবে আরও সুযোগ সৃষ্টি করা যায় তা নিয়েই এদিন বিস্তারিত আলোচনা হয়েছে। প্রতিটি দপ্তরকে এজন্য আলাদা আলাদাভাবে দায়িত্বও দেওয়া হবে।

তিনি জানিয়েছেন, প্রতিদিনই যাতে নির্দিষ্টভাবে ময়লা পরিষ্কার করা হয় সেজন্যও উপযুক্ত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। জেলাশাসক জানিয়েছেন, আসন্ন দুর্গাপুজোর আগেই যাতে এই সেতু চালু করা যায় সে ব্যাপারে তাঁরা সচেষ্ট রয়েছেন।এদিকে, এরই পাশাপাশি জেলাশাসক জানিয়েছেন, প্রতি সপ্তাহে বুধবার যেহেতু জেলা প্রশাসনের সমস্ত আধিকারিকরা পঞ্চায়েত সহ বিভিন্ন গ্রামে গ্রামে ঘুরছেন তাই এলাকার মানুষ তাঁদের নানান অসুবিধার কথাও তুলে ধরছেন। এরকমই ভাগীরথীর ভাঙনে ক্ষতিগ্রস্থদের পক্ষ থেকে আবেদন এসেছে কাটোয়া ১ নং ব্লক এবং পূর্বস্থলী ২নং ব্লক থেকে।

জেলাশাসক জানিয়েছেন, কাটোয়া ১ এবং পূর্বস্থলী ২নং ব্লকের মোট ১০টি বাড়িকে পুনর্নিমাণ করে দেবার জন্য স্থানীয় প্রশাসন তথা বিডিও এবং মহকুমাশাসকদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এই ১০টি বাড়ি ভাগীরথীর ভাঙনে নষ্ট হয়ে গেছে। প্রাপকদের তালিকা ইতিমধ্যেই তৈরী হয়ে গেছে। দ্রুততার সঙ্গে তাঁদের বাড়ি তৈরী করে দেবার জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এরই পাশাপাশি বৈতরণী প্রকল্পে জেলায় কোন কোন গ্রামে আরও শ্মশানঘাট প্রয়োজন তার তালিকা তৈরী করে ১৫দিনের মধ্যে রাজ্যে পাঠানো হচ্ছে।

এরই পাশাপাশি যে সমস্ত পুরনো শ্মশানঘাট রয়েছে তার পরিকাঠামোরও উন্নতি করার লক্ষ্য নেওয়া হয়েছে। এদিকে, গ্রামীণ এলাকায় এই নির্দেশিকার পাশাপাশি খোদ বর্ধমান শহরের ফুটপাত দখল হয়ে যাওয়ায় তা পুনরুদ্ধারের জন্যও এদিনই জেলাশাসক প্রয়োজনীয় নির্দেশ দিয়েছেন পুলিশ, পুরসভা এবং মহকুমা শাসকদের। রাস্তার দুপাশে ফুটপাত খালি করার জন্য প্রথমে মাইকে প্রচার চালানো হবে। তাতেও কাজ না হলে ফুটপাত দখল মুক্ত করতে সমস্ত জিনিসপত্র বাজেয়াপ্ত করার নির্দেশ দিয়েছেন জেলাশাসক বিজয় ভারতী।

0 Comments: