Headlines
Loading...
ঘরের মাঠ লর্ডসে সুপার ওভারে জিতে বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ড

ঘরের মাঠ লর্ডসে সুপার ওভারে জিতে বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ড



ফোকাস বেঙ্গল নিউজ ডেস্কঃ লর্ডসে চূড়ান্ত উত্তেজক ফাইনাল সুপার ওভারে ম্যাচ জিতে প্রথমবারের মতো বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হল ইংল্যান্ড ৷ টস জিতে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে নিউজিল্যান্ড ৫০ ওভারে ৮ উইকেটের বিনিময়ে ২৪১ রান তোলে ৷ জবাবে ব্যাট করতে নেমে ইংল্যান্ড ৫০ ওভারে ২৪১ রানে অলআউট হয়ে যায় ৷ স্কোর টাই হয়ে যাওয়ায় ম্যাচ নিস্পত্তির জন্য গড়ায় সুপার ওভারে ৷

এক ওভারের টাই ব্রেকারে প্রথমে ব্যাট করে ইংল্যান্ড বোল্টের ওভারে তোলে ১৫ রান ৷ অর্থাৎ, জয়ের জন্য কিউয়িদের সামনে এক ওভারে লক্ষ্যমাত্রা দাঁড়ায় ১৬ রান ৷ সুপার ওভারে স্টোকস একটি বাউন্ডারির সাহায্যে ৩ বলে ৮ রান করেন ৷ বাটলার একটি চারের সাহায্যে ৩ বলে করেন ৭ রান ৷

পালটা ব্যাট করতে নেমে নিউজিল্যান্ড জোফ্রা আর্চারের ওভারে নিউজিল্যান্ডও ১৫ রান তোলে ৷ সুপার ওভারেও স্কোর টাই হয়ে যায় ৷ তবে ম্যাচে বেশি বাউন্ডারি মারার জন্য ইংল্যান্ড বিশ্বকাপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে যায় ৷ চার ও ছক্কা মিলিয়ে ৫০ ওভারে নিউজিল্যান্ড মোট ১৬ বার বল বাউন্ডারির বাইরে পাঠায় ৷ ইংল্যান্ড সেখানে ২৪ বার বল বাউন্ডারি লাইনের বাইরে পাঠিয়েছে ৷



সুপার ওভারে একটি ওয়াইড করার পর আর্চারের প্রথম বলে ২ রান নেন জিমি নিশাম ৷ দ্বিতীয় বলে ছক্কা মারেন কিউয়ি তারকা ৷ তৃতীয় ও চতুর্থ বলে ২ রান করে তোলে নিউজিল্যান্ড ৷ পঞ্চম বলে নিশাম ১ রান নিলে শেষ বলে জয়ের জন্য নিউজিল্যান্ডের লক্ষ্যমাত্রা দাঁড়ায় ২ ৷ শেষ বলে ২ রান নিতে গিয়ে রান-আউট হন মার্টিন গাপ্তিল ৷ অর্থাৎ ১ রান বৈধ হয় তাদের এবং আরও একবার ম্যাচের স্কোর সমতায় দাঁড়িয়ে যায় ৷




সুপার ওভারের আগে ইংল্যান্ড ইনিংসের ৫০তম ওভারটিও ছিল খানিকটা একই রকমের ৷ শেষ ওভারে জয়ের জন্য ইংল্যান্ডের দরকার ছিল ১৫ রান ৷ ট্রেন্ট বোল্টের প্রথম দু’বলে কোনও রান নিতে পারেননি বেন স্টোকস ৷ তৃতীয় বলে ছক্কা মারেন তিনি ৷ চতুর্থ বলে ভাগ্যের জোরে ৬ রান পেয়ে যায় ব্রিটিশরা ৷ দু’রান নেওয়ার সময় রান-আউট থেকে বাঁচতে ডাইভ মারেন ব্যাটসম্যান স্টোকস ৷ গাপ্তিলের ছোঁড়া বল স্টোকসের ব্যাটে লেগে বাউন্ডারিতে চলে যায় ৷

শেষ দু’বলে জয়ের জন্য ৩ রান দরকার ছিল ব্রিটিশদের ৷ পঞ্চম বলে ২ রান নেওয়ার সময় রান-আউট হন আদিল রশিদ ৷ শেষ বলেও একই ভাবে ২ রান নেওয়ার সময় রানআউট হন মার্ক উড ৷ ফলে শেষ ২টি বলে ২ রান সংগ্রহ করে কোনও রকমে ম্যাচ টাই করতে সক্ষম হয় ইংল্যান্ড ৷
(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});