Headlines
Loading...
বর্ধমান ষ্টেশনের নাম বটুকেশ্বর দত্তের নামে করার দাবী থেকে পিছু হঠছে না স্মৃতি কমিটি

বর্ধমান ষ্টেশনের নাম বটুকেশ্বর দত্তের নামে করার দাবী থেকে পিছু হঠছে না স্মৃতি কমিটি



ফোকাস বেঙ্গল ডেস্ক,বর্ধমানঃ কেন্দ্রীয় রেলমন্ত্রক বা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের পক্ষ থেকে বর্ধমান ষ্টেশনের নাম পরিবর্তন করে বিপ্লবী বটুকেশ্বর দত্তের নামে করার ব্যাপারে কোনো সম্মতিই না দিলেও হাল ছাড়তে রাজী নন বিপ্লবী বটুকেশ্বর দত্ত স্মৃতি কমিটির সদস্যরা। কমিটির পক্ষ থেকে সাফ জানানো হয়েছে, রাজনৈতিক কোনো বিতর্ক তাঁরা চান না। তাঁরা চান, ঐক্যমত্যের ভিত্তিতেই রাজ্য ও কেন্দ্র সরকার বর্ধমান ষ্টেশনের নাম ঠিক করুক। বরং তাঁরা চান সম্মানজনকভাবেই বর্ধমান ষ্টেশনের নাম বটুকেশ্বর দত্তের নামেই করা হোক। অন্যত্র অবশ্যই নয়।

উল্লেখ্য, বর্ধমান ষ্টেশনের নাম বর্ধমানের খণ্ডঘোষ থানার ওঁয়াড়ি গ্রামের সন্তান বিপ্লবী বটুকেশ্বর দত্তের নামে করার ব্যাপারে ২০১২ সাল থেকেই দাবী দাওয়া জানিয়ে আসছেন এই স্মৃতি কমিটি। কমিটির সম্পাদক মধুসূদন চন্দ জানিয়েছেন,১৯৯০ সাল থেকেই তাঁরা বিপ্লবীর বসতবাড়িকে সংরক্ষণ করার দাবী, একটি মিউজিয়াম সহ এই বাড়িকে ঘিরে পর্যটন কেন্দ্র গড়ে তোলার দাবী জানিয়ে আসছেন। ২০১২ সালে বিপ্লবী বটুকেশ্বর দত্তের মেয়ে ভারতী দত্ত বাগচি এবং বিপ্লবী ভগত সিং-এর ভাগ্নে জগমোহন সিং ওঁয়াড়ি গ্রামে আসেন। তাঁদের উপস্থিতিতেই কমিটির সদস্যরা বর্ধমান ষ্টেশনের নাম বটুকেশ্বর দত্তের নামে করা সহ কয়েকদফা দাবী জানান কেন্দ্র ও রাজ্য সরকারের কাছে। 

সম্প্রতি এই ইস্যুতে রীতিমত গোটা দেশ জুড়ে ব্যাপক শোরগোল শুরু হয়। খোদ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায় সাফ জানিয়ে দেন, বর্ধমান ষ্টেশনের নাম পরিবর্তন করতে গেলে রাজ্য সরকারের অনুমোদন আগে নেওয়া প্রয়োজন। কিন্তু কেন্দ্র সরকার এব্যাপারে রাজ্য সরকারের সঙ্গে কোনো আলোচনাই করেননি। তিনি সাফ জানিয়ে দেন এভাবে নাম পরিবর্তন করা যায়না। অপরদিকে, বর্ধমান ষ্টেশনের নাম পরিবর্তনের খবরে সাধারণ মানুষ রীতিমত ফুঁসে ওঠেন। বর্ধমান শহরের বাসিন্দা প্রাক্তন শিক্ষক শম্ভূনাথ কর্মকার জানিয়েছেন, বর্ধমান ষ্টেশনের সঙ্গে অনেক ইতিহাস জড়িয়ে রয়েছে। সেই ইতিহাসকে মুছে দিয়ে নতুন করে ইতিহাস লেখা হলে তা ন্যায় সঙ্গত হবে না। বর্ধমানের জামাড় গ্রামের বাসিন্দা রামনারায়ণ কুণ্ডু জানিয়েছেন, ছোটবেলা থেকেই বর্ধমান ষ্টেশনকে ঘিরে, তার ইতিহাসকে নিয়ে সাধারণ মানুষের মধ্যে একটা আবেগ কাজ করছে। তাকে মিটিয়ে ফেলা ঠিক হবে না। খণ্ডঘোষের খুদকুরি গ্রামের বাসিন্দা অরবিন্দ সরকার জানিয়েছেন, বর্ধমান ষ্টেশনের নাম পরিবর্তন না করে বরং বটুকেশ্বর দত্তের নামে অন্য কিছু ভাবুক সরকার। বিপ্লবীকে স্মরণে রাখতে স্মরণীয় কিছু করুক সরকার। 

অন্যদিকে, মধুসূদন চন্দ জানিয়েছেন, ১৯২৯ সালে বটুকেশ্বর দত্ত এবং ভগত সিং এই বর্ধমান ষ্টেশনে নেমে কড়া ব্রিটিশ নিরাপত্তার বেষ্টনীর চোখে ধূলো দিয়ে ওঁয়াড়ি গ্রামে আত্মগোপন করেছিলেন। তাকে ভোলা যায় না। পাশাপাশি তিনি জানিয়েছেন,রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর ঐকান্তিক চেষ্টাতেই রাজ্য পর্যটন দপ্তর প্রায় ১ কোটি টাকা বরাদ্দ করে বিপ্লবীর বাড়ি সংরক্ষণ সহ একাধিক প্রকল্প গ্রহণ করেছে। তাই তাঁরা তাঁদের দাবী থেকে সরে আসছেন না। 

0 Comments: