Headlines
Loading...
প্রাকৃতিক দুর্যোগে ক্ষতিগ্রস্থ এলাকা ঘুরে দেখলেন মুখ্যমন্ত্রীর কৃষি উপদেষ্টা প্রদীপ মজুমদার

প্রাকৃতিক দুর্যোগে ক্ষতিগ্রস্থ এলাকা ঘুরে দেখলেন মুখ্যমন্ত্রীর কৃষি উপদেষ্টা প্রদীপ মজুমদার


ফোকাস বেঙ্গল ডেস্ক,বর্ধমানঃ  সোমবারই পুর্ব বর্ধমানের দেওয়ানদিঘীতে নির্বাচনী জনসভায় এসে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায় ঘোষণা করে যান প্রাকৃতিক দুর্যোগে ক্ষতিগ্রস্তদের সাহায্য দেবে রাজ্য সরকার। আর মুখ্যমন্ত্রীর ঘোষণার ২৪ ঘন্টা পার হতে না হতেই মুখ্যমন্ত্রীর কৃষি উপদেষ্টা প্রদীপ মজুমদার ঘুরে গেলেন ভাতারের বিভিন্ন এলাকা। খতিয়ে দেখলেন ক্ষতিগ্রস্ত জমির ধানও। তাঁর সংগে ছিলেন জেলার কৃষি আধিকারিক জগন্নাথ চট্টোপাধ্যায় সহ অন্যান্য কৃষি আধিকারিকরাও। +

গত রবিবার কালবৈশাখীর ঝড় বৃষ্টি ও শিলাবৃষ্টিতে লণ্ডভণ্ড হয়ে যায় শস্যগোলা পূর্ব বর্ধমানের ভাতার ব্লকের বিস্তীর্ণ এলাকার বোরোধানের জমি। ধান কাটার সময় হয়ে গেছে। তাই এখন ঝড় বৃষ্টি বা শিলাবৃষ্টিতে গাছের পাকা ধান ঝড়ে গেছে। সব থেকে ক্ষতিগ্রস্ত ভাতার ব্লকের কাশিপুর, গ্রামডিহী, বনপাশ, বামুনারা, সাহেবগঞ্জ, নারায়ণপুর গ্রাম। মঙ্গলবার জেলা কৃষি আধিকারিক জগন্নাথ চট্টোপাধ্যায়কে সঙ্গে নিয়ে কৃষি উপদেষ্টা প্রদীপ মজুমদার ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা সরেজমিনে দেখেন এবং চাষীদের সঙ্গে কথা বলেন। তিনি এলাকার কৃষি সমবায়গুলির সঙ্গেও পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা করেন। চাষীদের সমস্যাগুলি তিনি শোনেন।

এদিন সাহেবগঞ্জ এর এক চাষী প্রদীববাবুর কাছে অভিযোগ করেন, তিনি টোল ফ্রী নম্বরে ফোন করে ছিলেন। প্রথমে ফোন তোলেন নি বিমা কোম্পানি। কোন অভিযোগ নেয়নি। অনেক পরে ফোন তুলে কথা বলেন। সাহেবগঞ্জ ১ এর পঞ্চায়েত প্রধান চায়না অধিকারী জানান, এই এলাকায় প্রায় একশো শতাংশ জমির ফসল নষ্ট হয়ে গেছে। বনপাশ এর প্রধান দীপ্তি মন্ডল জানান, নারায়ণপুর মৌজাতে ৬০ শতাংশেরও বেশী ফসল নষ্ট হয়ে গেছে। প্রদীপবাবু এদিন জানিয়ে যান, মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশেই তিনি এলাকার পরিদর্শন করে গেলেন। গোটা বিষয়টি নিয়ে তিনি মুখ্যমন্ত্রীকে জানাবেন। রাজ্য সরকার চাষীদের পাশে আছে।

0 Comments: