Headlines
Loading...
চতুর্থ দফার ভোটের স্লগ ওভারে রাজনৈতিক প্রচারে চার ছয়ের বন্যা, বর্ধমানে মমতা, আমিত শাহ দ্বৈরথ

চতুর্থ দফার ভোটের স্লগ ওভারে রাজনৈতিক প্রচারে চার ছয়ের বন্যা, বর্ধমানে মমতা, আমিত শাহ দ্বৈরথ



ফোকাস বেঙ্গল ডেস্ক,বর্ধমানঃ চতুর্থ দফা ভোটের আর মাত্র ৯ দিন বাকি। দিন যত এগিয়ে আসছে রাজনৈতিক দলগুলির প্রচারের তীব্রতা ততো বেড়েই চলেছে পূর্ব বর্ধমান জেলায়। সোমবার একদিকে যেমন তৃনমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তিন তিনটি জনসভা করবেন এই জেলায়, তখন বিজেপির সর্বভারতীও সভাপতি আমিত শাহ বর্ধমান দুর্গাপুর কেন্দ্রের প্রার্থী সুরেন্দ্রজিত সিং অহলুবালিয়ার সমর্থনে জনসভা করার কথা খোদ বর্ধমান শহরের উৎসব ময়দানে। এই একই দিনে বিজেপির আরেক হেভিওয়েট মুখ যোগী আদিত্যনাথ কালনার ধাত্রীগ্রামে বর্ধমান পূর্বের বিজেপির প্রার্থী পরেশচন্দ্র দাসের সমর্থনে একটি জনসভায় যোগ দেবেন। স্বাভাবিকভাবেই সপ্তাহের প্রথম কাজের দিন সোমবার পূর্ব বর্ধমান জেলা তথা খোদ শহর বর্ধমান যে রাজ্যবাসির পাখির চোখ হতে চলেছে সে কথা বলাইবাহুল্য।

 
পাশাপাশি মঙ্গলবার বর্ধমান পূর্বের তৃণমূল প্রার্থী সুনীল মণ্ডলের সমর্থনে মেমরির মহেশডাঙা ক্যাম্পে একটি নির্বাচনী সভায় আসছেন ইন্দ্রাণী হালদার। একই দিনে মেমরিতে সিপিএমের বর্ধমান পূর্ব লোকসভা আসনের প্রার্থী ঈশ্বর দাসের সমর্থনে সভা করতে আসছেন ত্রিপুরার প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী মানিক সরকার। মঙ্গলবার বর্ধমান শহরে বর্ধমান দুর্গাপুর কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থী মমতাজ সংঘমিতার সমর্থনে রোড শো করার কথা অভিনেতা দেব এবং অভিনেত্রী লিলির।

স্বাভাবিকভাবেই ২৯ এপ্রিল চতুর্থ দফার ভোটের স্লগ ওভারে রাজনৈতিক প্রচারে যে চার ছয়ের বন্যা বইতে চলেছে সে কথা একবাক্যে স্বীকার করে নিয়েছে শাসক এবং বিরোধী দলের নেতা নেত্রীরা। 

সোমবার পূর্ব বর্ধমান জেলায় তিনটি নির্বাচনী সভায় অংশ নিচ্ছেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দোপাধ্যায়।দুপুর ১ টায় পূর্বস্থলীর জামাল্পুরে, ২ টোয় বর্ধমানের দেওয়ানদিঘী এবং সেহারাবাজারে তিনি সভা করবেন। দুর্গাপুরেও তাঁর একটি সভা করার কথা রয়েছে। একইদিনে বিকাল ৩ টায় বর্ধমানের উৎসব ময়দানে বিজেপির হয়ে নির্বাচনী সভা করতে আসছেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ।

 
পরপর একাধিক হেভিওয়েট স্টার রাজনৈতিক প্রচারকদের জনসভা কে ঘিরে জেলা প্রশাসনিক মহলে যুদ্ধকালীন তৎপরতা শুরু হয়েছে। রবিবার বর্ধমান টাউন হলে এই সংক্রান্ত আইন শৃঙ্খলা ও নিরাপত্তাজনিত বিষয় নিয়ে জেলা পুলিশ ও প্রশাসনের এক উচ্চ পর্যায়ের বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। জেলাশাসক, পুলিশ সুপার ছারাও এই বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন নির্বাচন পরিচালনার দায়িত্বপ্রাপ্ত একাধিক আধিকারিক। 

এদিকে সোমবার কাজের দিনে একের পর এক হেভিওয়েট প্রচারকদের আগমনে শহর ও শহরতলির জনজীবন যে কার্যত স্তব্ধ হতে চলেছে সেই আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন বহু সাধারন নাগরিক।

0 Comments: