728x90 AdSpace

Latest News

Tuesday, 26 March 2019

৪৯ বছর আগের ঘটে যাওয়া ঘটনার স্মৃতি উসকে কুখ্যাত সাঁই বাড়ির সামনে দিয়ে মিছিল


ফোকাস বেঙ্গল ডেস্ক,বর্ধমানঃ শুরু হয়েছে লোকসভা ভোটের রাজনৈতিক দলগুলির প্রচার অভিযান। মঙ্গলবার আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে সিপিএমের বর্ধমান দুর্গাপুর লোকসভা আসনের প্রার্থী আভাষ রায় চৌধুরী বর্ধমান পুরসভার ৩৩ ও ৩৪ নম্বর ওয়ার্ডে নির্বাচনী প্রচার সারলেন। কিন্তু বাম প্রার্থীর এদিনের প্রচার অভিযান থেকে কার্যত লোকসভা নির্বাচনের আগে ফের উসকে উঠল ১৯৭০ সালের ১৭ মার্চের গোটা দেশ জুড়ে নাড়া দিয়ে যাওয়া ঘটনার স্মৃতি। মঙ্গলবার সিপিএমের ৩নং লোকাল কমিটির পার্টি অফিস থেকে সিপিএম সমর্থকদের নিয়ে ভোট প্রচারে বের হন বর্ধমান দুর্গাপুর লোকসভা কেন্দ্রের প্রার্থী আভাষ রায় চৌধুরী। 


শহরের তেলমারুই রোড দিয়ে সর্বমঙ্গলা মন্দির এলাকা, বিসিরোড, ষাঁড়খানা গলি, রাধানগর, ঢলদিঘী পাড়া পাড় হয়ে কখন যেন ঢুকে পড়েছিলেন সেই ইতিহাসের সাক্ষীস্থলে। ইতিহাস হয়ে থাকা বর্ধমানের আপাদমস্তক কংগ্রেস পরিবার সাইঁবাড়ি হত্যাকাণ্ডের সেই প্রতাপেশ্বর শিবতলা লেনে। সিপিএমের দলীয় পতাকা নিয়ে কর্মীরা সিপিএম প্রার্থীকে ভোট দেবার আবেদন নিয়ে যখন সাঁইবাড়ির সামনে দিয়ে গেলেন, তখন অনেক সিপিএম সমর্থকেরই জোড়া চোখ নিবদ্ধ ছিল সাঁইবাড়ির ভগ্ন ভবনটার দিকে। নজর ছিল সাঁইবাড়ির গায়ে মাত্র ৯দিন আগে লাগানো 'রক্তাক্ত সাঁইবাড়ি' লেখা পোষ্টারের দিকে। 



প্রায় ৪৯ বছর আগে ঠিক এমন সময়েই ১৭ মার্চের সকালে এভাবেই সিপিএমের হাজারো সমর্থক হাতে দলীয় লাল পতাকা নিয়ে ঢুকেছিল এই লেনে। এরপরই ঘটে গিয়েছিল সেই নারকীয় নৃশংস্য ঘটনা। সাঁইবাড়ির ভেতর ঢুকে খুঁচিয়ে খুঁচিয়ে খুন করা হয়েছিল প্রণব সাঁই, মলয় সাঁই আর সেই সময় গৃহশিক্ষকতা করতে আসা জীতেন রায়কে। গোটা বাড়িকে সেইদিন ঘিরে ধরেছিল সিপিএমের সমর্থকরা। সাঁইবাড়িকে রক্তাক্ত করে দিয়ে যুদ্ধজয়ের আনন্দে তারা চলে গেছিলেন। আর প্রতাপেশ্বর শিবতলা লেনের তৎকালীন বাসিন্দারা দীর্ঘদিন আতংকে দিন কাটিয়েছিলেন এই নারকীয় হত্যালীলার ঘটনায়। এই সাঁইবাড়ির হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় অনেক বিচার চাওয়া হয়েছে। 



রাজ্যে মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে আসীন হবার পর মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায় নতুন করে কমিশনও গঠন করেছিলেন। কিন্তু সেই কমিশনের রিপোর্ট আজও দিনের আলো দেখেনি। কিন্তু তা না দেখলেও আজও সভা সমিতিতে বিশেষত বর্ধমান জেলায় সিপিএমের অত্যাচারের মাত্রা বোঝাতে নেতা-নেত্রীরা এখনও সেই সাঁইবাড়ির ঘটনাকেই তুলে ধরে চলেছেন। কার্যত সিপিআইএম-এর বিরুদ্ধে প্রচারের এখনও মুল ইস্যু সেই সাঁই বাড়ি হত্যাকাণ্ডের ঘটনা। কয়েকদিন আগেই ১৭ মার্চের সেই দিনটি পালিত হয়েছে এই প্রতাপেশ্বর শিবতলা লেনে। আর দীর্ঘ প্রায় ৪৯ বছর পর মঙ্গলবার সকালে সিপিএমের লালপতাকার মিছিল আওয়াজ তুলে পার হয়ে গেল প্রতাপেশ্বর শিবতলা গলি। পড়ে রইল রাস্তার একপাশে শুকিয়ে যাওয়া রক্তের দাগ নিয়ে সাঁইবাড়ি। ভোটের ফলাফল কি হবে তা ২৩ মে পর্যন্ত আম জনতার কাছে অজানাই । তবে সাঁই বাড়ি যে আজও তাদের গলার কাঁটা তা পদে পদে টের পাচ্ছে বর্ধমান জেলা সিপিএম। 
৪৯ বছর আগের ঘটে যাওয়া ঘটনার স্মৃতি উসকে কুখ্যাত সাঁই বাড়ির সামনে দিয়ে মিছিল
  • Blogger Comments
  • Facebook Comments

0 comments:

Post a comment

Top