Headlines
Loading...
ভোটের ময়দানে ফের প্রাসঙ্গিক ৪৯ বছর আগে ঘটে যাওয়া সাঁইবাড়ির ঘটনা

ভোটের ময়দানে ফের প্রাসঙ্গিক ৪৯ বছর আগে ঘটে যাওয়া সাঁইবাড়ির ঘটনা



ফোকাস বেঙ্গল ডেস্ক,বর্ধমানঃ  ১৯৭০ সালের ১৭ মার্চ, এই দিনেই ঘটেছিল সেই নারকীয় হত্যালীলা। বর্ধমান শহরের প্রতাপেশ্বর শিবতলা লেনের কংগ্রেসী পরিবার সাঁই বাড়িতে। সিপিএমের সমর্থকরা সশস্ত্র অবস্থায় চড়াও হয়েছিলেন এইদিন সাতসকালে। সাঁই বাড়ির ভেতর ঢুকে খুঁচিয়ে খুন করা হয়েছিল সাঁই বাড়ির দুই ভাই মলয় ও প্রণব সাঁইকে। সেই সময় বাড়িতে আসা গৃহ শিক্ষক জীতেন রায়কেও খুন করা হয়েছিল। বর্ধমানের সাঁই বাড়ির এই ঘটনা সেই সময় শুধু বাংলা জুড়েই নয়, সিপিএমের এই নৃশংস্য হত্যাকাণ্ডের নিন্দায় সরব হয়েছিলেন ইন্দিরা গান্ধীও। 

সাঁই বাড়ির এই ঘটনাকে ঘিরে বারে বারেই রাজনৈতিক তরজা চরমে যেমন উঠেছে, তেমনি সাঁই বাড়ির ঘটনার ওপর রং চড়িয়ে রাজনৈতিক ফায়দা তোলার রেশ আজও চলছে। বিভিন্ন রাজনৈতিক নেতৃত্ব সভা সমিতিতে সিপিএমের এই হত্যালীলাকে গুরুত্ব দিয়ে বোঝানোর জন্য বারবারই বলার চেষ্টা করেছেন, সাঁইবাড়ির হত্যাকাণ্ডের ঘটনার সময় শিশুকে কেটে তার রক্ত মাখিয়ে দেওয়া হয়েছিল ভাতের সঙ্গে। বস্তুত, বর্ধমানের সাইঁবাড়ির ঘটনার প্রায় ৪৯ বছর পরও সেই ঘটনাকেই সিপিএম কংগ্রেসের বিভাজনের ক্ষেত্রে তুরুপের তাস হিসাবে খেলার চেষ্টা আগেও হয়েছে, এখনও হচ্ছে। ২০১৯ সালের এই লোকসভা নির্বাচনে ফের কংগ্রসের সঙ্গে সিপিএমের জোটের জল্পনা চলছে। ইতিমধ্যেই পুর্ব বর্ধমানের বর্ধমান দুর্গাপুর লোকসভা আসনকে সিপিএমেরহাতে ছেড়ে দেওয়ায় রীতিমত ক্ষুব্ধ কংগ্রেস কর্মীরা। সাঁইবাড়ির রক্তে রাঙা সিপিএমের কোনো প্রার্থীকে কোনো সহায়তা করতে রাজী নন কংগ্রেস কর্মীরা। .

আর এই আবহের মাঝেই রবিবার সাঁইবাড়ি ঘটনার ৪৯ তম বছরটি পালিত হল। এদিন শহীদ বেদিতে মালা দিয়ে শ্রদ্ধা জানান তৃণমূল কংগ্রেসের জেলা সভাপতি স্বপন দেবনাথ সহ তৃণমূল নেতা এবং সাঁইবাড়ির পরিবারের সদস্যরাও। অন্যদিকে, এদিন ভাতারে তৃণমূল কংগ্রেসের কর্মীসভাতেও উঠে আসে সাঁইবাড়ির ঘটনা। কার্যত সিপিএমকে জব্দ করতে ৪৯ বছর আগে ঘটে যাওয়া ঘটনাই ফের ভোট রাজনীতির ময়দানে। উল্লেখ‌্য, এদিন সাঁইবাড়ি হত্যাকাণ্ডের এই ৪৯ তম বছরের দিনটি বর্ধমানের জেলা কংগ্রেস ভবনে পালিত করেন কংগ্রেস কর্মীরা। হাজির ছিলেন জেলা কংগ্রেস সভাপতি আভাষ ভট্টাচার্য, কার্য্যকরী সভাপতি কাশীনাথ গাঙ্গুলী প্রমুখরা।

0 Comments: