Headlines
Loading...
খণ্ডঘোষে জমি সংক্রান্ত বিবাদের জেরে একপক্ষ প্রাণঘাতী হামলা চালাল আরেক পক্ষের ওপর

খণ্ডঘোষে জমি সংক্রান্ত বিবাদের জেরে একপক্ষ প্রাণঘাতী হামলা চালাল আরেক পক্ষের ওপর



ফোকাস বেঙ্গল ডেস্ক, বর্ধমানঃ সম্প্রতি খণ্ডঘোষের খেজুরহাটির বাসিন্দা ৯০ বছরের বৃদ্ধা নইমা বিবি তাঁর বসত বাড়ি এবং বাড়ির নীচে ইমারতি ব্যাবসার দোকানের সামনে স্থানীও গিয়াসুদ্দিন মোল্লা এবং মোল্লা হাবিবর রহমানের বিরুদ্ধে বলপূর্বক মাটি ফেলে যাতায়াতের রাস্তা বন্ধ করার অভিযোগ দায়ের করেছিলেন পূর্ব বর্ধমান জেলা পুলিশ সুপারের কাছে। তারপরেও সেই মাটি সরিয়ে নেবার জন্য কোন ব্যাবস্থা নেওয়া হয়নি। এমনকি নইমা বিবির দুই ছেলে মোল্লা নজরুল ইসলাম এবং মোল্লা আমিনুল ইসলাম এর ক্রয় করা চাষের জমিতে চাষের কাজে অভিযুক্ত এই ব্যাক্তিরাই জল দিতে বাধা দিচ্ছে বলে অভিযোগ দায়ের করেছিলেন নইমা বিবি। 

আর এরপরই বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় দোকান বন্ধ করে খেজুরহাটির বাড়িতে ফেরার পথে স্থানীও নতুন পুকুরের কাছে রাস্তায় পথ আটকে অভিযুক্ত গিয়াসুদ্দিন মোল্লা এবং মোল্লা হাবিবর রহমানের নেতৃত্বে মোল্লা রাজকুমার,মোল্লা কুদ্দুস, মোল্লা রহিম, মোল্লা মুজিবর রহমান, মোল্লা তহিদুর রহমান, মোল্লা রফিকুল সকলে মিলে লাঠি, রড, বাঁশ প্রভৃতি দিয়ে বেধড়ক মারধর করল মোল্লা নজরুল ইসলাম এবং মোল্লা আমিনুল ইসলাম কে। মারের আঘাতে মোল্লা আমিনুল ইসলামের হাত ভেঙ্গে গিয়েছে। মাথা ফেটে রক্তাক্ত হয়েছে। অপরদিকে মোল্লা নজরুল ইসলাম এর অবস্থাও আশঙ্কাজনক। তাঁরও মাথা ফাটিয়ে দেওয়া হয়েছে এবং ডান পা মেরে ভেঙ্গে দেওয়া হয়েছে। দুজনকেই ওইদিন রাতে সংজ্ঞাহীন অবস্থায় উদ্ধার করে প্রথমে খণ্ডঘোষ প্রাথমিক স্বাস্থ্য কেন্দ্রে এবং পরে অবস্থার অবনতি হওয়ায় মোল্লা নজরুল ইসলাম কে বর্ধমানের একটি বেসরকারি নার্সিংহোমে এবং মোল্লা আমিনুল ইসলাম কে বর্ধমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। এই ঘটনায় ব্যাপক উত্তেজনা ছড়িয়েছে এলাকায়।

আহত ব্যাক্তিদের ভাই মোল্লা নিয়াজুল ইসলাম শুক্রবার অভিজুক্তদের বিরুদ্ধে খণ্ডঘোষ থানায় মোল্লা নজরুল ইসলাম এবং মোল্লা আমিনুল ইসলাম কে আক্রোশ বশত ষড়যন্ত্র করে খুন করে দেবার চেষ্টা চালিয়েছে অভিজুক্তরা বলে লিখিত অভিযোগ দায়ের করে। অভিযোগে এও জানানো হয়েছে, ব্যাবসা বন্ধ করে ফেরার সময় তাদের সঙ্গে থাকা চার লক্ষ কুড়ি হাজার টাকা (৪,২০,০০০ টাকা) হামলাকারীরা ছিনিয়ে নিয়েছে। মোল্লা নিয়াজুল ইসলাম জানিয়েছেন, দোষী ব্যাক্তিদের অবিলম্বে গ্রেফতার করে উপযুক্ত সাজা দেওয়া হোক। 

খণ্ডঘোষ বিধানসভার বিধায়ক নবীন বাগ এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে জানিয়েছেন, দুটি পরিবারের দীর্ঘদিনের বিবাদ থেকেই এই ঘটনা ঘটে থাকতে পারে। তবে এদিনের ঘটনা সম্পর্কে তাঁর কিছুই জানা নেই। তিনি জানিয়েছেন, খোঁজ নিয়ে দেখে ব্যাবস্থা নেবেন।

0 Comments: