728x90 AdSpace

Latest News

Friday, 25 January 2019

বর্ধমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মানষিক রোগীকে মার মহিলা চিকিৎসকের



ফোকাস বেঙ্গল ডেস্ক,বর্ধমানঃ এক মানসিক রোগীর বিরুদ্ধে বর্ধমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের এক মহিলা ডাক্তারের শ্লীলতাহানির অভিযোগে চাঞ্চল্য ছড়াল। জানা গেছে, বাঁকুড়ার কোতুলপুর থানার প্রতাপপুরের বাসিন্দা সঞ্জয় পণ্ডিত নামে এক যুবককে মানষিক চিকিৎসার জন্য বর্ধমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। দীর্ঘ প্রায় ১০ বছর ধরেই তিনি মানষিক রোগে ভুগছেন। এদিন তাঁর সঙ্গে ছিলেন সঞ্জয় পণ্ডিতের মা ছবি পণ্ডিত সহ অন্যান্য আত্মীয়রাও। 

ছবি পণ্ডিত জানিয়েছেন, এদিন তাঁর ছেলেকে বর্ধমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আউটডোরে চিকিৎসা করিয়ে যখন ফিরছিলেন সেই সময় ভিড়ের মাঝে সঞ্জয় পণ্ডিতের হাত ঠেকে যায় হাসপাতালের এক মহিলা চিকিৎসকের গায়ে। অভিযোগ, সঙ্গে সঙ্গে ওই মহিলা চিকিৎসক সঞ্জয় পণ্ডিতকে বেধড়ক মারধর করতে শুরু করেন। তাঁদের হাতে থাকা ডাক্তারের প্রেসক্রিপশন ছিঁড়ে দেন। ঘটনার আকস্মিকতায় হতভম্ব হয়ে পড়েন তারা। এই সময় তাকে অন‌্যায়ভাবে মারধর করা হচ্ছে বুঝতে পেরে সঞ্জয় পণ্ডিত এবং তার মা ছবি পণ্ডিত ওই মহিলা চিকিৎসকের পা জড়িয়ে ধরেন। কিন্তু তাতেও ওই মহিলা চিকিৎসকের ক্রোধ কমেনি বলে অভিযোগ। এই ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়ায়। এরপরই পুলিশ ওই মানষিক রোগীকে আটক করে। 

এই ঘটনা সম্পর্কে বর্ধমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ডেপুটি সুপার ডা. অমিতাভ সাহা জানিয়েছেন, চিকিৎসকদের পক্ষ থেকে তাঁর কাছে কোনো অভিযোগ আসেনি। তবে তিনি ঘটনার কথা শুনেছেন। যদি সত্যিই মানষিক রোগীকে মারধর করা হয়ে থাকে তাহলে অত্যন্ত দুর্ভাগ‌্যজনক ঘটনা। ওই রোগী মানষিক রোগাক্রান্ত কিনা তা খতিয়ে দেখা হবে। এদিকে ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, একজন চিকিৎসক হিসাবে ওই মহিলার মানসিকতা আরও সহনশীল হওয়ার প্রয়োজন ছিল। একজন মানসিক রোগীর সঙ্গে এই ধরনের ব্যাবহার নিন্দনীয়। যদিও ঘটনার আকস্মিকতায় ঠিক কি ঘটেছে সে ব্যাপারে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানাতে পারেননি। 

বর্ধমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মানষিক রোগীকে মার মহিলা চিকিৎসকের
  • Blogger Comments
  • Facebook Comments

0 comments:

Post a comment

Top