Headlines
Loading...
বাগিলা পূর্ন চন্দ্র স্মৃতি বিদ্যামন্দির - এর ৫০ বছর পূর্তি

বাগিলা পূর্ন চন্দ্র স্মৃতি বিদ্যামন্দির - এর ৫০ বছর পূর্তি


সৌমিক ভট্টাচার্য্য,বাগিলাঃ কুয়াশার চাঁদর ক’দিন ধরে ঢেকে রেখেছে প্রকৃতির শুদ্ধতাকে। পৌষী হাওয়ার কাঁপন মুহুর্তে ছড়িয়ে পড়ছে শিরা উপশিরায়। কিন্তু সুবর্ণ জয়ন্তী উৎসবের প্রেক্ষাপট একেবারেই ভিন্ন। বর্তমান আর প্রাক্তনিদের মিলনের এই যে উষ্ণতা তা যেন হারহিম শীতকেও হার মানিয়েছে। সামাজিক বৈষম্য, জাত, ধর্ম, বর্ণ সব কিছুকে হেলায় সরিয়ে স্কুল জীবনের স্মৃতিচারণ করতে গিয়ে প্রাক্তন শিক্ষার্থী আর অতিথিরা বলবে একঘেয়ে, কঠোর কিন্তু স্বাধীনতা আর ব্যক্তিত্ববোধের স্বতঃস্ফূর্ত বিকাশে মোহনীয় ছিল নানা রঙের দিনগুলি। স্মৃতিগুলো সব অবগুণ্ঠনে বুকের অতল গভীরেই থেকে যায়।  

পূর্ব বর্ধমান জেলার বাগিলা পূর্ন চন্দ্র স্মৃতি বিদ্যামন্দির - এর ৫০ বছর পূর্তি উপলক্ষে অনুষ্ঠিত হলো এক বিশেষ অনুষ্ঠান। সকালেই মশাল জ্বালিয়ে পদযাত্রার আয়োজন করা হয়। বিদ্যালয়ের ছাত্র ছাত্রী সহ শিক্ষক শিক্ষিকারা এই পদযাত্রায় পা মেলান। পরবর্তী পর্যায়ে প্রদীপ প্রজ্বলন করে অনুষ্ঠানের শুভ সূচনা করেন রাজ্যের মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ। আদিবাসী নৃত্য ও রংপা সহযোগে মাননীয় মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ মহাশয় কে সম্বর্ধনা জানানো হয়। 

এদিনের অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন মেমরি বিধানসভার বিধায়ক নার্গিস বেগম, পূর্ব বর্ধমান জেলার সাইবার সেলের আধিকারিক স্নেহাশিস চৌধুরী সহ বহু বিশিষ্ঠ ব্যাক্তিত্ব। ১৯৬৯ সালে পূর্ন চন্দ্র কোনার নামে এক ব্যাক্তি স্কুলের জন্য জমি দান করেন। সেই স্থানে গড়ে ওঠে এই বিদ্যালয়। বর্তমানে বিদ্যালয়ের ছাত্র ছাত্রীর সংখ্যা প্রায় ৮৫০ জন। ৫০ বছর পূর্তি উপলক্ষে বিভিন্ন অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয় বিদ্যালয় প্রাঙ্গনে। বিদ্যালয়ের বর্তমান ছাত্র ছাত্রীদের সাথে উপস্থিত ছিলেন প্রাক্তন প্রাক্তনীরাও।

0 Comments: