Headlines
Loading...
বিয়েতে পাত্রীর পরিবারের অস্বীকার, নিজের যৌনাঙ্গ কেটে আত্মহত্যার চেষ্টা যুবকের

বিয়েতে পাত্রীর পরিবারের অস্বীকার, নিজের যৌনাঙ্গ কেটে আত্মহত্যার চেষ্টা যুবকের


ফোকাস বেঙ্গল ডেস্ক,হুগলীঃ  নিজের পছন্দের পাত্রীর সঙ্গে পাত্রীপক্ষ বিয়ে দিতে অস্বীকার করায় ব্লেড দিয়ে নিজের যৌনাঙ্গ কেটে আত্মঘাতী হওয়ার চেষ্টা করল এক যুবক। চাঞ্চল্যকর এই ঘটনা ঘটেছে হুগলীর গুপ্তিপাড়ার টেংরীপাড়া এলাকায়। গুরুতর আশঙ্কাজনক অবস্থায় ওই যুবককে ভর্তি করা হয়েছে কালনা মহকুমা হাসপাতালে। 

ওই যুবকের পরিবার সূত্রে জানা গেছে, সম্প্রতি পাড়ার একটি বিয়েবাড়িতে নিমন্ত্রিত হয়ে গেছিলেন ওই যুবক সোমনাথ সাহা। সেই বিয়ে বাড়িতেই তাঁর পছন্দ হয় একটি মেয়েকে। এরপরই সরাসরি বিয়ের প্রস্তাব দেওয়া হয় ওই মেয়েটির পরিবারে। সোমনাথ সাহার দাবী, তার পরিবার থেকে বিয়ে দিতে রাজী হলেও এবং তার দাবী,মেয়েটিও বিয়েতে রাজী ছিল। কিন্তু মেয়েটির পরিবারের পক্ষ থেকে এই বিয়ে দিতে অস্বীকার করে। আর তারপরই হতাশায় চুড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয় সোমনাথ। হতাশার জেরে নিজের যৌনাঙ্গকেই কেটে ফেলে সে ব্লেড দিয়ে। এরপর যন্ত্রণায় ছটফট করতে থাকলে পরিবারের লোকজন তাকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় কালনা সুপার স্পেশালিটি হাসপাতাল এ ভর্তি করেন। 

সোমনাথের কাকা জানিয়েছেন, দুদিন আগে হুগলির গুপ্তিপাড়ার টেংরিপাড়া এলাকায় একটি বিয়ের অনুষ্ঠান ছিল। সেখানে নিমন্ত্রিত ছিল ওই যুবক। বিয়েবাড়িতেই নিমন্ত্রিত হয়ে আসা এক যুবতীর সঙ্গে তাঁর পরিচয় হয়। মেয়েটিকে পছন্দ হয় ওই যুবকের। ওইটুকু সময়েই কিছুটা হলেও দুজনের মধ্যে একটা সম্পর্ক তৈরি হয়। আর তার থেকেই মেয়েটিকে বিয়ে করার সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেন ওই যুবক। বাড়িতে বিষয়টি জানান। তাঁর পরিবারের তরফে যোগাযোগ করা হয় মেয়েটির পরিবারের সঙ্গে। দেওয়া হয় বিয়ের প্রস্তাব। কিন্তু সেই প্রস্তাব ফিরিয়ে দেয় মেয়ের বাড়ির লোক। পরিবারের অনুমান, ওই যুবক পেশায় দিনমজুর। সেই কারণেই হয়তো মেয়ের পরিবার রাজি হয়নি। মেয়েটিকে বিয়ে করতে পারবে না, এটা জানার পর থেকেই মানসিক ভাবে ভেঙে পড়েছিল ওই যুবক বলে পরিবারের দাবি। তাঁরা জানিয়েছেন, রবিবার রাতে হঠাত্ ওই যুবকের আর্তনাদ কানে আসে বাড়ির সদস্যদের। তাঁরা গিয়ে দেখেন রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে যন্ত্রণায় কাতরাচ্ছেন তিনি। তাঁকে সঙ্গে সঙ্গে নিয়ে যাওয়া হয় কালনা সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে। সেখানে প্রাথমিক চিকিত্সা হয়। কিন্তু অবস্থার অবনতি হতে থাকায় তাঁকে কলকাতায় রেফার করা হয়েছে।

0 Comments: