Headlines
Loading...
পরকীয়া সন্দেহের জেরে স্বামীর মারে হাসপাতালে বধূ

পরকীয়া সন্দেহের জেরে স্বামীর মারে হাসপাতালে বধূ



ফোকাস বেঙ্গল ডেস্ক,কালনাঃ অন্য পুরুষের সাথে অবৈধ সম্পর্ক গড়ে তুলেছে সন্দেহে স্ত্রীকে বেল্ট দিয়ে বেদম মারধর করলেন স্বামী। আর সেই মারের চোটে আহত বধূ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। এই ঘটনাটি ঘটেছে রবিবার রাত্রে কালনা থানার হাটকালনা গ্রাম পঞ্চায়েতের উত্তর গোয়ারার খেজুরবাগান পাড়ায়। সোমবার কালনা মহকুমা হাসপাতালে চিকিৎসারত অবস্থায় পিঙ্কি মন্ডল জানায়, সাত দিন ধরে তার উপর চরম নির্যাতন চালাচ্ছে তার স্বামী স্বপন মন্ডল। তাকে ঠিকমত খেতে দেওয়া হয়নি, এমনকি তাকে ছেলেমেয়েদের কাছে পর্যন্ত যেতে দেওয়া হয়নি। 

১২ বছর আগে খেজুরবাগান পাড়া পাড়ার যুবক স্বপন মন্ডল ভালোবেসে বিয়ে করে কালনা শহরের ১৩ নং ওয়ার্ডের নেপপাড়ার মেয়ে পিঙ্কিকে। বর্তমানে তাদের দুটি মেয়ে ও একটি ছেলে রয়েছে। বড় মেয়ের বয়স ৯ বছর। পিঙ্কির ভাই নারায়ন সাউ জানান, তারা এই অত্যাচারের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ জানাবেন। 

অন্যদিকে পেশায় গাড়ি চালক স্বামী স্বপন মন্ডল জানায়, "বাইরে গিয়ে বাড়ির সাথে যোগাযোগ করার জন্য বছর দুইয়েক আগে স্ত্রী কে একটা স্মার্ট ফোন কিনে দিয়েছিলাম। এটাই আমার সংসারের কাল হয়ে দাঁড়ায়। আমি যখনই ফোন করি তখনই ঘন্টার পর ঘন্টা স্ত্রীর ফোন ব্যস্ত থাকতে দেখা যায়। ও যে অপর কোন ব্যক্তির সাথে অবৈধ সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েছে, তা জানাজানি হয়ে যায়। আমার পরিবারে তো বটেই, বিষয়টি প্রতিবেশীদের মধ্যেও ছড়িয়ে পড়ে। এই নিয়েই ওর গায়ে হাত তুলেছি, ছেলেমেয়ে গুলোর মুখের দিকে তাকিয়ে।" তিন সন্তানই বেসরকারি ইংলিশ মিডিয়াম স্কুলে পড়াশুনা করে। তাদের দিকে নজর না দিয়ে যদি ঘরের বউ দিনের পর দিন সন্ধ্যার পর বাড়ি থেকে বেরিয়ে যায়, তাহলে নিজেকে আর কতক্ষন সংযত রাখা যায় ? প্রশ্ন স্বামীর। রবিবার গভীর রাত্রে বাড়ির টাকা পয়সা, গহনা, এমনকি বিভিন্ন কাগজপত্র পর্যন্ত নিয়ে পিঙ্কি চলে গেছে বলে জানিয়েছেন স্বামী স্বপন মন্ডল।তিনি জানান, একটা ফোনের জন্য তার সাজানো সংসার চোখের সামনে শেষ হয়ে গেল। কালনা থানার পুলিশ জানায় এ ব্যাপারে এখনো পর্যন্ত কোন অভিযোগ হয়নি।

0 Comments: