728x90 AdSpace

Latest News

Thursday, 27 December 2018

চাকরি দেবার নাম করে প্রতারণার অভিযোগে বর্ধমানে গ্রেপ্তার ল ক্লার্ক



ফোকাস বেঙ্গল ডেস্ক,বর্ধমানঃ  প্রতারণার অভিযোগে বর্ধমান আদালতের এক মহিলা ল ক্লার্ক কে গ্রেপ্তার করল বর্ধমান থানার পুলিশ। ধৃতের নাম অসীমা মালিক। বাড়ি বর্ধমান শহরের লাকুর্ডি এলাকায়। প্রতারিত বর্ধমান শহরের কালনাগেট বনমসজিদ পাড়ার বাসিন্দা রণবীর হালদার জানিয়েছেন, তাঁকে ৬ মাসের মধ্যে সরকারী চাকরী করে দেবার নাম করে অসীমা মালিক তাঁর কাছ থেকে প্রায় ৪ লক্ষ টাকা নেয়। কিন্তু সময় পেরিয়ে গেলেও তিনি চাকরি না পাওয়ায় তিনি টাকা ফেরত চান। সম্প্রতি বাঁকুড়ার পাত্রসায়ের এলাকায় তাঁকে টাকা ফেরত দেবার জন্য ডেকে পাঠায় প্রতারক। সেখানে গেলে তাঁকে প্রাণে মেরে ফেলার চেষ্টা করা হয়। খবর পেয়ে পাত্রসায়ের থানার পুলিশ তাকে উদ্ধার করে। 

রণবীর জানিয়েছেন, তাঁকে একটি চেক দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু সেই চেকও বাউন্স করে। বুধবার দুপুরে অসীমা মালিককে কোর্ট চত্বরে দেখতে পাওয়ার পর তাকে বর্ধমান মহিলা থানার পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়। ওই মহিলার অভিযোগ, তাকে মারধর করা হয়েছে। বুধবার রাতে এব্যাপারে লিখিত অভিযোগ দায়ের করার পর পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করে। বৃহস্পতিবার তাকে বর্ধমান সিজেএম আদালতে তোলা হলে ভারপ্রাপ্ত বিচারক মণিকা চট্টোপাধ্যায় উভয়পক্ষের আইনজীবীর বক্তব্য শুনে আগামী বুধবার পর্যন্ত তাঁকে জেল হেফাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন। 

উল্লেখ‌্য, এই ঘটনায় ইতিমধ্যেই মলয় মুখার্জ্জী না্মে বর্ধমান শহরের শ্যামসায়র এলাকার এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগ দায়ের করেছেন প্রতারিত বেকার যুবকরা। তাঁদের অভিযোগ সরকারী বিভিন্ন দপ্তরে চাকরী করে দেবার নাম করে বর্ধমান ছাড়াও বাঁকুড়া, বীরভূম, পুরুলিয়া প্রভৃতি জেলার প্রায় ১৫০ জন বেকার যুবককে প্রতারিত করে প্রায় ৫০ কোটি টাকার জালিয়াতি করা হয়েছে। রণবীর হালদারের অভিযোগ, এই অসীমা মালিক মলয় মুখার্জ্জীর এজেণ্ট হিসাবে কাজ করত। 
চাকরি দেবার নাম করে প্রতারণার অভিযোগে বর্ধমানে গ্রেপ্তার ল ক্লার্ক
  • Blogger Comments
  • Facebook Comments

0 comments:

Post a comment

Top