728x90 AdSpace

Latest News

Monday, 12 November 2018

কন্যা সন্তান হওয়ায় গৃহবধুকে পুড়িয়ে খুন করার অভিযোগ শ্বশুরবাড়ির বিরুদ্ধে

ফোকাস বেঙ্গল ডেস্ক,পূর্ব বর্ধমানঃ কন্যা সন্তান হওয়ায় এক গৃহবধুকে পুড়িয়ে মারার অভিযোগ উঠল পূর্ব বর্ধমানের রায়না থানার শ্যামসুন্দর এলাকায়। মৃত গৃহবধুর নাম পূজা দাস (২৩)। তাঁর বাপের বাড়ি রায়না থানার শ্যামসুন্দর এলাকার শিবরামপুর গ্রামে। মৃতার বাবা গুরুপদ দাস জানিয়েছেন, প্রায় ৭ বছর আগে পেশায় সুমন দাসের সঙ্গে তাঁর বড় মেয়ে পূজা দাসের বিয়ে হয়। কিন্তু বিয়ের পর কিছুদিন ভালভাবে চললেও তাদের একটি কন্যা সন্তান হওয়ার পর তার ওপর অত্যাচারের মাত্রা বেড়ে যায়। শারীরিক ও মানষিক নির্যাতন চলতে থাকে। এমনকি প্রায়শই তাকে বাপের বাড়ি থেকে টাকা-পয়সা আনার জন্য চাপও দেওয়া হচ্ছিল। 

গুরুপদবাবু জানিয়েছেন, তিনি তাঁর সাধ‌্যমত শ্বশুরবাড়ির চাহিদা মেটানোর চেষ্টাও করছিলেন। সম্প্রতি জামাইকে একটি পপকর্ণ বিক্রির গাড়িও কিনে দেন। রাজমিস্ত্রীর কাজকর্মের পাশাপাশি পপকর্ণের ব্যবসাও করতে থাকে। কিন্তু তারপরেও অত্যাচার চলতেই থাকে। পুজা দাসের মামা প্রশান্ত কাইতি জানিয়েছেন, তাঁর ভাগ্নি ভাল নাচতে পারত। বিয়ের আগে বিভিন্ন জায়গায় সে নেচে সুনামও কুড়িয়েছে। বিয়ের পর সে নাচও ছেড়ে দিয়েছিল। কিন্তু সংসারের এই অশান্তির জেরে এবং সংসার চালাতে ফের সে নাচের অনুষ্ঠান করছিল। কিন্তু তা সত্ত্বেও তার ওপর নির্যাতন চলতেই থাকে। গত শনিবার তার জেরেই তার গায়ে কেরোসিন তেল ঢেলে পুড়িয়ে মারার চেষ্টা করেন শ্বশুরবাড়ির লোকজন। আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে বর্ধমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করার পর সোমবার সকালে তার মৃত্যু হয়। 

গৃহবধুকে পুড়িয়ে খুনের ঘটনায় রায়না থানার পুলিশ জানিয়েছে, মৃতার পরিবারের পক্ষ থেকে করা অভিযোগের ভিত্তিতে ইতিমধ্যেই মৃতা পুজা দাসের স্বামী সুমন দাস, জা সারথী দাস, মৃতার শ্বশুর সুকুমার দাস এবং শাশুড়ীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাঁরা বর্তমানে জেল হেফাজতে রয়েছেন
কন্যা সন্তান হওয়ায় গৃহবধুকে পুড়িয়ে খুন করার অভিযোগ শ্বশুরবাড়ির বিরুদ্ধে
  • Blogger Comments
  • Facebook Comments

0 comments:

Post a Comment

Top