728x90 AdSpace

Latest News

Saturday, 26 May 2018

ফর্ম ফিলাপকে কেন্দ্র করে রক্তাক্ত হল হুগলীর কামারপুকুর কলেজ

ফোকাস বেঙ্গল ডেস্ক,হুগলীঃফর্ম ফিলাপ কে কেন্দ্র করে রক্তাক্ত হল কামারপুকুর কলেজ অর্থাৎ শ্রীশ্রী রামকৃষ্ণ সারদা বিদ্যা মহাপীঠ। জানা গিয়েছে, হুগলির গোঘাট থানার কামারপুকুর শ্রী শ্রী রামকৃষ্ণ সারদা বিদ্যা মহাপীঠে পরীক্ষায় বসার ফর্ম ফিলাপকে কেন্দ্র করে শনিবার উত্তপ্ত হয়ে ওঠে কলেজ চত্বর। অবস্থা এমন পর্যায়ে পৌঁছায় ফরম ফিলাপ করতে আসা এক ছাত্র কে রক্তাক্ত অবস্থায় দেখা যায়। ফর্ম ফিলাপ করতে আসা ছাত্রদের ফর্ম ফিলাপ করতে না দেওয়ার অভিযোগকে কেন্দ্র করে ঘেরাও হন কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ । ছাত্রদের বিরুদ্ধে অভিযোগ ওঠে কলেজের ছাত্র সংসদ ও একাডেমিক বিভাগে ভাঙচুর করার । ঘটনার খবর পেয়ে উত্তপ্ত পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে কলেজে ছুটে যায় গোঘাট থানার পুলিশ । যদিও কিভাবে একজন ছাত্র রক্তাক্ত হলো তার সদুত্তর কোন পক্ষই দিতে পারেনি।

উল্লেখ্য, গত ৭ মে থেকে কামারপুকুর কলেজে বি.এ. প্রথম বর্ষের সেকেন্ড সেমেস্টারের ফর্ম ফিলাপ শুরু হয়েছিল। বিশ্ববিদ্যালয়ের নিয়ম অনুসারে যাদের কলেজের উপস্থিতির হার ৫০ শতাংশের নিচে তাদেরকে ফরম ফিলাপ করতে দেওয়া হয়নি । ফলে প্রায় শ'পাঁচেক ছাত্র-ছাত্রী আটকে যায় সেকেন্ড সেমেস্টার এর ফর্ম ফিলাপ করতে। শনিবার ছিল ফর্ম ফিলাপের শেষ দিন। এদিন কলেজে প্রায় ২০০ জন ছাত্রছাত্রী এসেছিল, যারা ফর্ম ফিলাপ করতে পারেনি । কেন তাদেরকে ফর্ম ফিলাপ করতে দেওয়া হবে না, এইসব অভিযোগ তুলে তারা অধ্যক্ষকে ঘেরাও করে রাখেন।

 

কলেজের তৃণমূল পরিচালিত ছাত্র সংসদের সদস্যদের অভিযোগ, ওই সময় ছাত্রছাত্রীরা একাডেমিক বিভাগে ভাঙচুর চালায়। তারা অফিসেও ভাঙচুর করে। ফর্ম ফিলাপ করতে না পারা ছাত্রদের অভিযোগ ,তাদেরকে মারধর করা হয় কলেজের মধ্যে। ঘটনায় হায়াত আলী দালাল নামে এক ছাত্র রক্তাক্ত হয়ে যায়। যদিও ছাত্র সংসদের সদস্যদের অভিযোগ এরকম কোন ঘটনাই ঘটেনি । ওরা নিজেরাই বাঁশ জাতীয় কিছু তুলতে গিয়ে রডে আঘাত লেগে এই ঘটনা ঘটিয়েছে। এবিষয়ের কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ চিত্তরঞ্জন ঘোষ বলেন, ইউজিসির নিয়ম অনুসারে ৫০ শতাংশের নিচে যাদের উপস্থিতির হার তাদেরকে ফর্ম ফিলাপ করতে দেওয়া সম্ভব নয়।

চিত্তরঞ্জন বাবু আরো বলেন একাডেমিক কমিটির সিদ্ধান্তেই ফর্ম ফিলাপের এই সিদ্ধান্ত আগেই জানিয়ে দেওয়া হয়েছিল। গত ৭মে থেকে ফর্ম ফিলাপ চলছিল । আজ তাঁর শেষ দিন ছিল। এমনও অনেক ছাত্র-ছাত্রী আছে যারা ভর্তি হওয়ার পর আর কলেজে আসেনি। কারো উপস্থিতির হার শূন্য শতাংশ, কারো বা ৫ শতাংশ। এদিন হঠাৎ ফর্ম ফিলাপ করতে না পারা ২০০ জন ছাত্রছাত্রী আমাদেরকে ঘেরাও করে, কলেজে ভাঙচুর চালায়। এক ছাত্র কিভাবে রক্তাক্ত হলো জিজ্ঞাসা করায় ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ বলেন ,ওরা কলেজে ভাঙচুর চালাতে গিয়ে কলেজে পড়ে থাকা কোন বাঁশের লাঠি তুলতে গিয়েছিল, সেই সময়ে রডে আঘাত লেগে এই ঘটনা ঘটেছে বলে শুনেছি
ফর্ম ফিলাপকে কেন্দ্র করে রক্তাক্ত হল হুগলীর কামারপুকুর কলেজ
  • Blogger Comments
  • Facebook Comments

0 comments:

Post a comment

Top