728x90 AdSpace

Latest News

Tuesday, 20 February 2018

পূর্ব বর্ধমানে বাস্তবায়িত হল না বামেদের 'জেল ভরো' কর্মসূচি


ফোকাস বেঙ্গল ডেস্ক,পূর্ব বর্ধমান: পূর্ব বর্ধমানে মঙ্গলবার বামপন্থীদের 'জেল ভরো' কর্মসূচি শেষ পর্যন্ত অধরাই থেকে গেল। এদিন দুটি ব্যারিকেড ভেঙে পুলিশের সঙ্গে ধস্তা-ধস্তিতেই সীমাবদ্ধ থাকল বামপন্থী কেন্দ্রীয় ট্রেড ইউনিয়নের আইন অমান্য আন্দোলন। তবে এটাকে তাদের যুদ্ধজয় হিসাবেই দেখছেন সিটুর জেলা সম্পাদক অরিন্দম কোনার থেকে সিপিএমের জেলা কমিটির সদস্য আভাস রায়চৌধুরী। তাঁদের দাবি,চাইলে এদিন জেলাশাসকের অফিস ঘেরাও করতে পারতেন তাঁরা। কিন্তু সেটা তারা করেন নি। অন্যদিকে পুলিশের বাধা সত্ত্বেও বামপন্থীদের দু-দুটি ব্যারিকেড অনায়াসে ভেঙে দেওয়ার ঘটনায় কার্যত প্রশ্নের মুখে পুলিশের ভূমিকা। আভাসবাবু জানান, পুলিশের দুটি ব্যারিকেডকেই ভেঙে দিয়ে তাঁরা তাঁদের ক্ষমতা দেখিয়ে দিয়েছেন।
 

রাজ্যব্যাপী কর্মসূচির অঙ্গ হিসাবে এদিন ১৩ দফা দাবিতে মঙ্গলবার বর্ধমান ষ্টেশন থেকে প্রায় কয়েক হাজার বামপন্থী কেন্দ্রীয় ট্রেড ইউনিয়নের সমর্থক মিছিল করে আসেন কোর্ট কম্পাউণ্ডে। লক্ষ্য ছিল আইন অমান্য ও জেল ভরো কর্মসূচী পালন। কিন্তু পুলিশের ব্যর্থতাতেই হোক বা আন্দোলনকারীদের শক্তি প্রয়োগেই হোক পুলিশের দুটি ব্যারিকেড ভেঙ্গে পুলিশকে ঠেলে সরিয়ে দিয়েই এগিয়ে গেলেন আন্দোলনকারী বাম নেতৃত্বরা। আন্দোলনকারীদের বাধা দেওয়ার মত পর্যাপ্ত পুলিশ না থাকায় কার্যত যুদ্ধজয়ের ঘোষণা করেন বাম নেতৃত্ব। ভারতী ঘোষের প্রসঙ্গ তুলে কার্যত পুলিশকে হুঁশিয়ারি দেন তাঁরা। তবে পুলিশের সঙ্গে ধস্তাধস্তি হলেও জেল ভরো কর্মসূচী বাস্তবায়িত হয়নি বামেদের। পাশাপাশি জেলাশাসক না থাকায় তারা স্মারকলিপিও জমা দেননি এদিন। প্রতিবাদে প্রায় ১৫মিনিট অবরোধ করেন কার্জন গেটের সামনে রাস্তা। এরপর তারা সেখান থেকে চলে যান। 
                                                                                                               ছবি - সুরজ প্রসাদ 
পূর্ব বর্ধমানে বাস্তবায়িত হল না বামেদের 'জেল ভরো' কর্মসূচি
  • Blogger Comments
  • Facebook Comments

0 comments:

Post a comment

Top