728x90 AdSpace

Latest News

Saturday, 31 August 2019

বর্ধমানে দিলীপ ঘোষের গাড়ি আটকে তৃণমূলের বিক্ষোভ, কালো পতাকা, তীব্র উত্তেজনা


ফোকাস বেঙ্গল ডেস্ক,বর্ধমান: আসামে নাগরিক পঞ্জীর মত পশ্চিমবঙ্গেও চালু হবে এনআরসি। শনিবার বর্ধমানে দলীয় সভায় যোগ দিতে এসে একথা বলে গেলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি। তিনি জানিয়েছেন, বিজেপি রাজ্যে ক্ষমতায় এলে অবশ্যই এনআরসি চালু হবে। তিনি জানান, মুসলিম অনুপ্রবেশকারীদেরই তাড়ানো হবে। তাদের ভারতবর্ষে থাকার কোনো অধিকার নেই। পাশাপাশি তিনি জানান, যাঁরা হিন্দু অনুপ্রবেশকারী তাঁদের আইন মোতাবেক এদেশের নাগরিকত্ব দেওয়া হবে। এদিন শোভন-বৈশাখীর দলত্যাগ করার ইচ্ছাপ্রকাশ করার বিষয়ে দিলীপবাবু জানিয়েছেন, বিজেপিতে অনেকেই আসছেন। যাঁরা আসছেন তাঁদের স্বাগত জানানো হচ্ছে। প্রত্যেকেরই কাজ আছে। প্রত্যেকেই কাজ করছেন। কাজ খুঁজে নিতে হবে। শোভন বৈশাখীর পদত্যাগের ইচ্ছা প্রকাশ সম্পর্কে তিনি জানিয়েছেন, এব্যাপারে তিনি কিছু জানেন না। তাঁকে কিছু জানানো হয়নি। 

এদিকে, এদিন ফের পুলিশের সামনেই বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষকে লক্ষ্য করে তৃণমূলের গো ব্যাক ধ্বনি এবং কালো পতাকা দেখানোকে কেন্দ্র করে ব্যাপক উত্তেজনা দেখা দিল বর্ধমান শহরে। শুধু তাইই নয়,তৃণমূলের নেতারা সরাসরি জানিয়ে দিলেন দিলীপবাবু যেখানেই যাবেন সেখানেই তৃণমূল তাঁকে ঘিরে বিক্ষোভ দেখাবেন। শনিবার বর্ধমানের লায়ন্স ক্লাবে দলীয় সংগঠনের নির্বাচন প্রক্রিয়া সংক্রান্ত বিষয়ে বিজেপির দলীয় আভ্যন্তরীন বৈঠকে যোগ দিতে আসেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। বৈঠকে ছিলেন বর্ধমান দুর্গাপুর লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি সাংসদ সুরেন্দ্রজিত সিংহ অহলুবালিয়া,জেলা সভাপতি সন্দীপ নন্দী প্রমুখরাও। 

এদিন বর্ধমানের গুডসেড রোডে দিলীপবাবুকে নিয়ে বিজেপি সমর্থকদের মিছিল ঢুকতেই গুডসেড রোডের মুখে থাকা তৃণমূল কংগ্রেসের দলীয় অফিসে আগে থেকেই জমায়েত করে থাকা তৃণমূল কংগ্রেস কর্মীরা দিলীপবাবুর উদ্দেশ্যে গো- ব্যাক ধ্বনি দিতে থাকেন। দেখাতে থাকেন কালো পতাকাও। এদিন দুপুর থেকেই পরিস্থিতি উত্তেজনাপূর্ণ হতে থাকায় মোতায়েন করা হয়ে্ছিল বিশাল পুলিশ বাহিনী। দলীয় সভা সেরে দিলীপবাবু যখন ফিরে যান সেই সময় ফের একবার বিক্ষোভ প্রদর্শন করে তৃণমূল নেতা কর্মীরা। একই জায়গায় তাঁর গাড়ির সামনে তৃণমূল কংগ্রেসের জেলা সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রব দিলীপ ঘোষের গাড়ি আটকিয়ে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন।এই সময় বিজেপি কর্মীদের সঙ্গে তৃণমূল কর্মীদের শ্লোগান পাল্টা শ্লোগানে তীব্র উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। বিশাল পুলিশ বাহিনী দুপক্ষকে সরিয়ে দিয়ে দিলীপবাবুকে যাবার পথ করে দেয়।


দিলীপবাবু চলে যেতেই বিজেপি কর্মীরা এই ঘটনার প্রতিবাদে এবং পুলিশী নিষ্ক্রিয়তার প্রতিবাদে পার্কাস রোডের মোড়ে রাস্তা অবরোধ করে বসে পড়েন। পরে পুলিশ তাদের অবরোধ তুলে দেয়। এদিকে, বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেন, 'হাতি যখন যায় তখন পিছনে অনেক কুকুর চিৎকার করে। ওরা ওদের কাজ করছে। আমরা আমাদের কাজ করছি। তিনি বলেন, বিজেপির কাছে সবরকমের ভাষা আছে। তাঁরা চাইলে সঙ্গে সঙ্গেই ওদের কয়েকজনকে হাসপাতালে পাঠাতে পারতেন। কিন্তু তাঁরা তা করেননি। পুলিশের সামনেই এই ঘটনা ঘটায় এবং পুলিশ আগা্ম সব জেনেও কোনো ব্যবস্থা না নেওয়ায় দিলীপবাবু বলেন, পুলিশ তৃণমূলের দলদাস হয়ে গেছে। তবুও তাঁরা আশা করেন পুলিশ নিরপেক্ষ কাজ করবেন।
বর্ধমানে দিলীপ ঘোষের গাড়ি আটকে তৃণমূলের বিক্ষোভ, কালো পতাকা, তীব্র উত্তেজনা
  • Blogger Comments
  • Facebook Comments

0 comments:

Post a Comment

Top