728x90 AdSpace

Latest News

Tuesday, 16 July 2019

কাটমানি কাণ্ডে প্রাক্তন প্রধান, বর্তমান প্রধান সহ তৃণমূল নেতার বাড়িতে ব্যাপক ভাঙচুর, উত্তেজনা


ফোকাস বেঙ্গল ডেস্ক,বর্ধমানঃ
  কাটমানি নিয়ে বিজেপির চাপে পড়ে সম্প্রতি বর্ধমান ১নং ব্লকের বণ্ডুল গ্রামে তৃণমূলের নেতারা গ্রামবাসীদের টাকা ফেরত দিয়েছিলেন। কিন্তু তারপরেও পঞ্চায়েতের দুর্নীতি নিয়ে বণ্ডুল গ্রাম পঞ্চায়েতে চাপ বাড়িয়েই চলছিল বিজেপি। এরই পরিপ্রেক্ষিতে মঙ্গলবার দুপুরেই বর্ধমান ১নং ব্লকের বিডিও মৃণালকান্তি বিশ্বাস বণ্ডুল ১নং গ্রাম পঞ্চায়েতের সমস্ত কর্মীদের নিয়েই বৈঠক বসেন। বিজেপির অভিযোগ ছিল ১০০ দিনের কাজ থেকে গাছ কাটার টাকা নিয়ে ব্যাপক দুর্নীতি করা হয়েছে প্রধানের নেতৃত্বে। এব্যাপারে বিজেপির পক্ষ থেকে বিডিওর কাছে স্মারকলিপি ছাড়াও পঞ্চায়েত প্রধান কৃষ্ণা পালের কাছে লিখিতভাবে তথ্য চাওয়া হয়েছিল।

মঙ্গলবার বিডিওর ডাকা বৈঠকে হাজির হয়ে খোদ প্রধান স্বীকার করে নেন, তিনি যা করেছেন স্থানীয় তৃণমূল নেতা মিহির হাজরার নির্দেশেই করেছেন। যেহেতু তাঁর নির্দেশেই তিনি প্রধান হন, তাই তিনি যা করেছেন তা মিহির হাজরার নির্দেশেই করেছেন। এদিন বৈঠকে হাজির ছিলেন দেওয়ানদীঘি থানার ওসি অরুন সোম। এদিকে, প্রধানের এই স্বীকারোক্তির বিষয়টি প্রকাশ হতেই বিজেপির পক্ষ থেকে পঞ্চায়েতে প্রশাসক নিয়োগের দাবী জানানো হয়। প্রধানকে অপসারণ করে পঞ্চায়েতে প্রশাসক নিয়োগ না করা হলে তাঁরা পঞ্চায়েত চালাতে দেবেন না বলেও হুমকি দেন।


স্থানীয় বিজেপি নেতা চঞ্চল বাগ জানিয়েছেন, দুর্নীতির কথা প্রধান নিজে স্বীকার করছেন। মিহির হাজরার নির্দেশে উনি গাছ বিক্রীর টাকা, একশো দিনের কাজের টাকা তছনচ করছে। আমরা কোন অবস্থাতেই এই পঞ্চায়েত প্রধানকে কাজ করতে দেব না। এখানে প্রশাসক বসাতে হবে। উনি জনগণের নির্বাচিত প্রতিনিধি হয়ে আসনে বসেননি। এদিকে, এই পরিস্থিতিতে বুধবার বিজেপির প্রতিনিধিদের নিয়ে ফের বৈঠকে বসবেন বলে বিডিও জানিয়ে যান।

অন্যদিকে, বৈঠক শেষে বন্ডুল ১ গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান কৃষ্ণা পাল জানিয়েছেন, বাধ্য হয়েই তিনি মিহিরকান্তি হাজরার কথামত কাজ করেছেন। না করলে তিনি মারধরের ভয় দেখাতেন। তিনি জানিয়েছেন, বন্ডুল থেকে কামারকিতা অবধি গাছ কাটার প্রায় ৮ লক্ষ টাকা পঞ্চায়েতে জমা পড়েনি। অপরদিকে, মিহিরকান্তি হাজরা জানিয়েছেন পরিকল্পনা করেই বিজেপি এই কাজ করাচ্ছে। খুনের হুমকি দিচ্ছে। এখন ভয়ে অনেকেই অনেক কথা বলে দিচ্ছে। ওদের প্রমান দিতে হবে তো দুর্নীতি হয়েছে তার।

এদিকে, এরই পাশাপাশি মিহিরবাবু জানিয়েছেন, এদিন দুপুর প্রায় আড়াইটে নাগাদ জনা দশেক দুষ্কৃতি তাঁর বাড়িতে চড়াও হয়ে ব্যাপক ভাঙচুর চালায়। তাঁরা বিজেপি না তৃণমূল তিনি জানেন না। তাঁকে এবং তাঁর স্ত্রীকেও মারধর করা হয়েছে। এছাড়াও প্রাক্তন প্রধান মিঠু বাগ এবং বর্তমান প্রধান কৃষ্ণা পালের বাড়িতেও ব্যাপক ভাঙচুর চালানো হয়েছে। এই ঘটনায় এদিন সন্ধ্যায় দেওয়ানদিঘী থানায় লিখিত অভিযোগও দায়ের করেছেন মিহিরবাবুর স্ত্রী।
কাটমানি কাণ্ডে প্রাক্তন প্রধান, বর্তমান প্রধান সহ তৃণমূল নেতার বাড়িতে ব্যাপক ভাঙচুর, উত্তেজনা
  • Blogger Comments
  • Facebook Comments

0 comments:

Post a Comment

Top