728x90 AdSpace

Latest News

Monday, 7 May 2018

মেয়েকে খুন করে মেরে ফেলার খবর পৌঁছাতেই হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হল মায়ের

ফোকাস বেঙ্গল ডেস্ক,পূর্ব বর্ধমানঃ মেয়েকে খুন করে মেরে ফেলার খবর পৌঁছাতেই হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হল মায়ের। এই ঘটনায় রীতিমত চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে ভাতার থানার ওড়গ্রামের ঝরণা কলোনীতে। মৃত মেয়ের নাম চম্পা সাহা (২৩)। মায়ের নাম কবিতা গোলদার (৬০)। মৃত চম্পা সাহার আত্মীয় গোবিন্দ গোলদার জানিয়েছেন, প্রায় বছর খানেক আগে চম্পার সঙ্গে বিয়ে হয় বর্ধমানের সদরঘাটের শ্মশানপাড়ার বাসিন্দা পেশায় লটারী টিকিট বিক্রেতা সন্তোষ সাহার। বর্তমানে চম্পা প্রায় ৮ মাসের অন্তঃসত্ত্বা ছিলেন। 

মৃতের পরিবারের পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়েছে, বিয়ের সময় নগদ টাকা ও সোনাদানা সহ পণ বিয়েই বিয়ে দেওয়া হয়েছিল। তারপরেও মাঝে মধ্যেই বাপের বাড়ি থেকে টাকা আনার জন্য চাপ দেওয়া হত চম্পার ওপরে। মারধোরও করা হত। সম্প্রতি চম্পাকে বাপের বাড়ি থেকে ব্যবসার জন্য ২০ হাজার টাকা আনার জন্য চাপ দেওয়া হয়। চম্পার বাপের বাড়ি থেকে সেই টাকা দেওয়াও হয়। এরপর ফের মোটর সাইকেল কেনা এবং ব্যবসা বাড়ানোর জন্য টাকা আনার চাপ দেওয়া হচ্ছিল চম্পাকে। আর তার জেরেই শনিবার রাতে চম্পাকে প্রথমে শ্বাসরোধ করে খুন করে তাকে টাঙিয়ে দেওয়া হয় বলে অভিযোগ মৃতের পরিবারের। শনিবার রাতে আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাকে বর্ধমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে আসা হলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।
এই ঘটনায় মৃত চম্পার স্বামী সহ শাশুড়ি, ননদ এবং ননদাইয়ের বিরুদ্ধে বর্ধমান থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। যদিও মৃতের পরিবারের পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়েছে, এব্যাপারে থানায় চম্পাদেবীর শ্বশুরবাড়ির বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ করলে তাদের অ্যাসিড দিয়ে পুড়িয়ে মারা হবে বলেও হুমকি দেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন পরিবারের লোকজন।

বর্ধমান থানার পুলিশ জানিয়েছেন, অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে একটি মামলা রুজু করে তদন্ত শুরু হয়েছে।
মেয়েকে খুন করে মেরে ফেলার খবর পৌঁছাতেই হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হল মায়ের
  • Blogger Comments
  • Facebook Comments

0 comments:

Post a Comment

Top