728x90 AdSpace

Latest News

Wednesday, 11 April 2018

ঘুমের মধ্যেই দুই পুত্র সন্তান ও মা অগ্নিদগ্ধ,মৃত এক ছেলে


ফোকাস বেঙ্গল ডেস্ক,আরামবাগ:একই পরিবারে দুই পুত্র সন্তান ও মায়ের অগ্নিদগ্ধ হওয়ার ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়াল  আরামবাগের ২ নং ওয়ার্ডের বাঁধ পাড়া এলাকায়। আগুনে পুড়ে মারা গেছে বড় ছেলে শান্তনু ক্ষেত্রপাল (১২)। সে পঞ্চম শ্রেণীর ছাত্র ছিল। গুরুতর আহত মা বেলা ক্ষেত্রপাল ও ছোট ছেলে শুভ ক্ষেত্রপালেকে স্থানীয় আরামবাগ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

জানা গিয়েছে, ঘটনার সময় বাঁধ পাড়ায় একটি ঝুপড়ি বাড়িতে বেলা দেবী তার দুই সন্তানকে নিয়ে ছিলেন। তাঁর স্বামী প্রদীপ ক্ষেত্রপাল কাজের সূত্রে বর্ধমানের সেহারা বাজারে গিয়েছিলেন।মঙ্গলবার রাতে ঘরের মধ্যে মোমবাতি জ্বালিয়ে শুয়ে পড়েন তাঁরা। মোমবাতি নেভাতে ভুলে যান বেলা দেবী। এদিন আবহাওয়া ঠাণ্ডা থাকায় বেলা দেবী তার দুই ছেলেকে নিয়ে সকাল করেই ঘুমিয়ে পড়েছিলেন। রাত সাড়ে নটা নাগাদ হটাৎ দাউ দাউ করে পুরো বাড়ি জ্বলতে শুরু করে। কিন্তু তারা বুঝতে পারেননি। আগুন দেখে পাড়া প্রতিবেশি ছুটে আসেন। মা ও ছোট ছেলেকে উদ্ধার করা গেলেও বড় ছেলে শান্তনু কে উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি।


স্থানীয় বাসিন্দারা জানিয়েছেন, মা ও দুই ছেলেই বাঁশের মাচার মধ্যে শুয়ে ছিলেন।বড় ছেলে শান্তনুর একটি পা মাচার মধ্যে গলে যায়। এর ফলে আগুন লাগার পর সেই বেশি অগ্নিদগ্ধ হয়। জল দিয়ে আগুন কিছুটা নিয়ন্ত্রণে আনার পরে প্রতিবেশীরা তাকে উদ্ধার করে আরামবাগ হাসপাতালে ভর্তি করেন। চিকিৎসা চলাকালীন বুধবার সকালে মারা যায় শান্তনু। 

এদিকে মর্মান্তিক এই ঘটনায় এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে। ছেলের মৃত্যুতে কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন মা বেলা। হাসপাতালের বেডে বসে বেলা দেবী কাঁদতে কাঁদতেই বলেন, 'আমি মোমবাতি জ্বালিয়ে শুয়েছিলাম, ভাবলাম একটু পরে নিভিয়ে দেব, কিন্তু ঘুমিয়ে পড়েছি। কখন যে মোমবাতি উল্টে ঘরে আগুন লেগে গেল বুঝতে পারিনি। যখন বুঝতে পারলাম তখন ছোট ছেলেটাকে নিয়ে বের হলাম । আর বড় ছেলেটার পা মাচায় আটকে যাওয়ায় তাকে বের করতে পারিনি।আমি আমার বড় ছেলেকে বাঁচাতে পারলাম না।'
ঘুমের মধ্যেই দুই পুত্র সন্তান ও মা অগ্নিদগ্ধ,মৃত এক ছেলে
  • Blogger Comments
  • Facebook Comments

0 comments:

Post a Comment

Top